যত দুশ্চিন্তা চোট নিয়ে!



আনুষ্ঠানিকভাবে আজ থেকে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বিশ্বকাপ ক্যাম্প। অবশ্য এই ক্যাম্পে যোগ দেননি বিশ্বকাপ দলে ডাক পাওয়া সকল ক্রিকেটার।

আজ (২৩ এপ্রিল) সকালে বিশ্বকাপ দলে ডাক পাওয়া ১৫ জন ক্রিকেটারের মিরপুরের শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে উপস্থিত হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন লিগের (ডিপিএল) খেলার কারণে বেশির ভাগ ক্রিকেটারই এই ক্যাম্পে এখনো যোগ দেননি।

কেবল নিজেদের উপস্থিতির জানা দিয়ে চলে গিয়েছিলেন ডিপিএলে নিজ নিজ দলের অনুশীলনে। আইপিএল উপলক্ষে ভারতে থাকার জন্য সাকিবকেও পাওয়া যায়নি।

আজকের অনুশীলনে উপস্থিত ছিলেন মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুস্তাফিজুর রহমান, তামিম ইকবাল ও রুবেল হোসেন।

এছাড়া ছিলেন প্রধান কোচ স্টিভ রোডস, পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, ব্যাটিং পরামর্শক নিল ম্যাকেঞ্জিসহ কোচিং স্টাফের সদস্যরা।

এসময় সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথা বলেন কোর্টনি ওয়ালস। দলের অভ্যন্তরীন ইনজুরি সমস্যা ও ফিটনেস নিয়ে খুব বেশি চিন্তিত তিনি।

বিশেষ করে পেস বোলারদের চোট দুশ্চিন্তায় ফেলেছে তাকে। তবে বিশ্বকাপের আগেই সবাইকে ফিট পাবেন বলে আশা করছেন ওয়ালশ।

সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘দেখুন এবারের বিশ্বকাপ অনেক লম্বা। ৯টা করে ম্যাচ খেলতে হবে সবাইকে। এই অবস্থায় ক্রিকেটারদের ফিট থাকাটায় বড় একটা চ্যালেঞ্জ। স্কোয়াডে থাকা সব পেসাররাই ছোটখাটো চোটে ভুগছে। এটা আমার জন্য দুশ্চিন্তার কারণ। আশা করি, সফরে যাওয়ার আগেই সবাই সুস্থ হয়ে উঠবে।’

সাধারণত ইংল্যান্ডের উইকেট পেস বোলিং বান্ধব হয়ে থাকে। আইসিসি ইভেন্ট বলে বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের জন্যই বেশি কিছু থাকবে পিচে বলে মনে করেন এই ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি পেসার।

তাই সাফল্য পেতে হলে বুদ্ধিদীপ্ত ও কৌশলী হয়ে খেললে হবে।

ওয়ালশ বলেন, ‘প্রথাগতভাবে ইংল্যান্ডের উইকেট পেস সহায়ক হয়ে থাকে। কিন্তু এটা যেহেতু আইসিসির ইভেন্ট তাই উইকেট ব্যাটসম্যানদের পক্ষেই থাকবে। সাফল্য পেতে হলে আপনাকে ভালো জায়গায় বল করতে হবে। বুদ্ধি খাটাতে হবে। ইংলিশ কন্ডিশন অন্য দেশের মতো না। একটু কৌশলী হলেই আপনি ভালো করতে পারবেন।’

তবে এর আগে ফিটনেস আদায় করতে হবে বলে মনে করেন তিনি। নতুন ফরমেটে এই বিশ্বকাপে সব দল সবার বিরুদ্ধে লড়বে।

লম্বা এ টুর্নামেন্টে চোটে আক্রান্ত হওয়া খুব বেশি অসম্ভবের কিছু নয়। তাই এ ব্যাপারে বাড়তি সতর্ক থাকতে হবে বলে মনে করেন তিনি।