অযত্নে গড়ে ওঠা দাঁড়িতে থাকে অসংখ্য ব্যাকটেরিয়া



সম্প্রতি সুইজারল্যান্ডের একটি ক্লিনিকে পরিচালিত ওকে গবেষণায় দেখা গিয়েছে, পুরুষের দাড়িতে কুকুরের পশমের থেকে বেশি জীবাণু থাকে। নামকরা স্বাস্থ্যকেন্দ্র হার্সল্যান্ডেনে এই গবেষণা করা হয়।

গবেষণার প্রধান কারণ ছিল মানুষের এমআরআই স্ক্যান মেশিনে কুকুরের এমআরআই স্ক্যান করা সম্ভব কিনা তা দেখার জন্য। এই রহস্য উদঘাটন করতে গিয়ে বেরিয়ে এল দাড়িতে কত জীবাণু থাকে।

গবেষণায় ১৮ জন পুরুষের দাড়ির নমুনা এবং ৩০টি কুকুরের পশমের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। ফলাফল ছিল আঁতকে ওঠার মতো। ১৮ জন পুরুষের প্রত্যেকের দাড়িতে উঁচুমাত্রায় ব্যাকটেরিয়া পাওয়া গেছে।

তাদের মধ্যে আবার সাতজনের দাড়িতে এতো উঁচু মাত্রায় ব্যাকটেরিয়া পাওয়া গেছে যেটা যে কোনো সময় ঐ মানুষগুলো অসুস্থ হয়ে পড়তে পারে।

অন্যদিকে যে ৩০টি কুকুরের নমুনা পরীক্ষা করা হয়, তাদের মধ্যে ২৩টির পশমে ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি ছিল। বাকি সাতটি কুকুরের পশম ছিল পুরোপুরি জীবাণুমুক্ত।

হার্সল্যান্ডেন ক্লিনিকে গবেষণা পরিচালনাকারী জানিয়েছে, ‘আমরা যা পেয়েছি, তাতে বলাই যায় যে দাড়িওয়ালা মানুষের চেয়ে কুকুর বেশি পরিষ্কার।’

অবশ্য এ গবেষণার ফলাফল হয়ত সব দাড়ির ক্ষেত্রে ঠিক নাও হতে পারে। তবে যারা দাড়ি রাখেন তাদের জন্য ভাবনার কারণ হতে পারে।

যারা দাড়ি রাখেন তারা দাড়ির প্রতি যথেষ্ট যত্নবান হতে হবে। নতুবা যে কোন সময় কঠিন রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।