জীবন্ত অক্টোপাস খেতে গিয়ে…



জীবিত অক্টোপাস খাওয়াটা ছিল তাঁর অনেক দিনের স্বপ্ন।রেস্তোরায় যেয়ে একটি জীবিত অক্টোপাস অর্ডার করেন তিনি। আকাঙ্খিত সেই স্বপ্ন পূরণের মুহূর্ত শেয়ার করতে সোশ্যাল মিডিয়ার একটি প্ল্যাটফর্ম বেছে নেন ‘লাইভ স্ট্রিমিং’র জন্য।

ঘটনাটি ঘটিয়েছেন এক চাইনিজ তরুণী। চীনা এই তরুণী একজন ব্লগারও বটে। তার উদ্দেশ্য ছিল লাইভে জীবিত অক্টোপাস খাওয়ার দৃশ্য সবাই কে অবগত করানো।

খাবার পরিবেশনের পরে, সেই জীবিত অক্টোপাসটি হাতে তুলে খেতে গিয়েই চরম বিপদে পড়লেন। সব ক’টি শুঁরের মতো পা দিয়ে তখন আষ্টেপৃষ্ঠে তরুণীর মুখ জড়িয়ে ধরেছে ওই অক্টোপাস।

তার মুখের প্রায় অর্ধেক অংশ তখন অক্টোপাসের কবলে।ভয়ে,যন্ত্রনায় চিৎকার শুরু করলেন ওই তরুণী। দু’হাত দিয়ে প্রাণপনে অক্টোপাসের কবল থেকে নিজেকে রক্ষা করার চেষ্টা চালালেন।

পুরো ঘটনাটি ‘লাইভ’ ভিডিও’র মাধ্যমে অনেকেই দেখে ফেলেছেন তখন। ভয়ঙ্কর একটি পরিস্থিতি এমন যে, কোনো রকমে নিজের চোখটুকু বাঁচাতে চাইছেন ওই চীনা তরুণী।কিছু ক্ষণ রুদ্ধশ্বাস টানাটানির পর শেষ পর্যন্ত অক্টোপাসের কবল থেকে নিজেকে মুক্ত করতে সক্ষম হন ওই চীনা ব্লগার।

যদিও ততক্ষণে তার গালের একটা অংশে ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে আর সেখান থেকে রক্ত ঝরতে শুরু করেছে।ঘটনাটির ভিডিও এখন রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গেছে। এই ঘটনার পর আর কখনওই অক্টোপাস খাবেন না বলে জানিয়েছেন তরুনী।

এবং ওই অক্টোপাসটিকেও যে তিনি খাননি, তা সহজেই অনুমান করা যায়! অক্টোপাস সাধারণত আত্মরক্ষার জন্য বা শিকার ধরার ধরার জন্য এই ভাবে তার ৮টি শুঁরের মতো পা ব্যবহার করে। এই ভিডিও দেখে অনেকেরই অনুমান, খাদকের হাত থেকে বাঁচতে শেষমেশ পাল্টা আক্রমণের পথ বেছে নিয়েছিল ওই অক্টোপাস।

জীবিত অক্টোপাস খাবার এই দৃশ্য তুলে ধরতে, চীনের ফটো শেয়ারের এ্যপ্লিকেশন ‘কুয়াশিউ’ এ (Kuaishou) লাইভ স্ট্রিমীং করেছিলেন ওই তরুনী।

ইদানিং আমরা এতো বেশি পরিমানে অনলাইনে আসক্ত হয়ে পরেছি, পরিনাম না ভেবেই হুট করে যা ইচ্ছে তাই করে ফেলি। তার ফলস্বরূপে মেলে এমন কিছু কঠিন অভিজ্ঞতা