হিন্দু বন্দিরাও রোজা রাখছে মুসলমানদের সাথে



সম্প্রতির বন্ধন দৃঢ় হচ্ছে হিন্দু ও মুসলমানদের মধ্যে। এই রমজান মাসে ভারতের বিভিন্ন জেলে দেখা গিয়েছে মুসলমান বন্দিদের সাথে সংহতি জানিয়ে রোজা রাখছেন হিন্দুরাও।

জেল সুপারের কাছ থেকে জানা যায়, প্রতি বছর হিন্দু বন্দিদের রোজা রাখার প্রবণতা বাড়ছে।

তিনি আরও জানান, গত বছর দিল্লির তিহার জেলে হিন্দু রোজাদারের সংখ্যা ছিল ৫৯ জন। এ বছর রোজাদার হিন্দুর সংখ্যা বেড়ে ১৫০-এ দাঁড়িয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমসে এক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়, তিহারের বিভিন্ন কারাগারে প্রায় ১৬ হাজার ৬৬৫ বন্দি রয়েছে। যার মধ্যে দুই হাজার ৬৫৮ মুসলিম ও হিন্দু বন্দি এ বছর রোজা পালন করছেন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, জেল কর্তৃপক্ষ রোজাদারদের জন্য খাবারসহ বিশেষ ব্যবস্থা করেছে, গত বছরের তুলনায় ৩ শতাংশ হিন্দু বন্দির মধ্যে রোজা রাখার আগ্রহ বেড়েছে।

রোজার প্রতি হিন্দু বন্দিরা কেন এত আগ্রহ এই ব্যাপারে জানতে চাইলে বলে, এর কয়েকটি কারণ থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন জেলসুপার।

তিনি বলেন, হিন্দু বন্দিদের বেশিরভাগই তাদের মুসলমান বন্ধু বন্দির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশের জন্য রোজা রাখছে।

কারাগারে থাকা বন্দিরা ধর্মীয় কার্যক্রমে আগ্রহী হচ্ছেন জানিয়ে জেলসুপার বলেন, আমাদের পর্যবেক্ষণ হলো- ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ বন্দি ধর্মীয় আচার পালনে আগ্রহী হয়ে উঠছেন।

অনেক বন্দি এ কারণে রোজা রাখছেন যে, যদি তারা প্রভুকে সন্তুষ্ট করতে পারে তা হলে শিগগিরিই তাদের মুক্তি মিলবে-জানান জেলসুপার। আত্মপ্রশান্তির জন্যও অনেক হিন্দু রোজা রাখছেন বলে জানান তিনি।

জেলসুপার জানান, হিন্দু-মুসলিম এ ধরনের সম্প্রীতি শুধু তিহার জেলেই নয়, ভারতের অন্যান্য জেলেও এমন ঘটনা বাড়ছে।

এভাবে প্রতি বছর হিন্দুদের বিভিন্ন উৎসবে সংখ্যালঘু মুসলিম বন্দিরাও সংহতি প্রকাশ করে উপোস করেন।