চাঁদে রোবটযানের সফল অবতরণ, রহস্য উদঘাটনে আশাবাদী বিজ্ঞানীরা!



দিন যত যাচ্ছে বিজ্ঞান তত অগ্রসর হচ্ছে নানা গবেষণা কর্মে। চীনের মনুষ্যবিহীন রোবটযান ‘চাং’ই-৪’ হইচই ফেলে দিয়েছিল চাঁদের অন্ধকার দিকে সফলভাবে অবতরণ করে।

চীনের মনুষ্যবিহীন এই যানটি চাঁদের সবচেয়ে বড় রহস্য উদঘাটনে সাহায্য করবে বলে আশা করা যাচ্ছে। সম্প্রতি রোবটিক এই যানের ক্যামেরায় ধরা পড়েছে চাঁদের উপরিভাগে থাকা আকরিকের চিত্র।

বিজ্ঞানীরা ধারণা করছেন, এটা বিশ্লেষণ করে উপগ্রহটির উৎপত্তিসহ দীর্ঘদিনের লুপ্ত নানা বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানা যাবে। সম্প্রতি বিজ্ঞানবিষয়ক প্রখ্যাত সাময়িকী ন্যাচার-এর এক গবেষণা প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে।

‘চাং’ই-৪’ গত জানুয়ারি মাসের প্রথম দিকে চাঁদের অন্ধকার পিঠে প্রথমবারের মতো অবতরণ করে বিশ্বে ইতিহাস সৃষ্টি করে। আর সেখানে উঠে আসা আকরিকের উপস্থিতির খবর আরেকটি বড় সাফল্য হিসেবে দেখছেন বিজ্ঞানীরা।

ন্যাচার-এর গবেষকরা বলেছেন, ওই চীনা নভোযানটিতে চাঁদের ভূপৃষ্ঠে দুটি পৃথক ধরনের শক্ত বস্তুর লেয়ার ধরা পড়েছে, যা আগে কখনো এই ধরনের বস্তু দেখা যায়নি। ওই আকরিকের মতো দেখতে ওই বস্তুগুলো চাঁদের উপরিভাগের আবৃত বস্তু হিসেবে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

লন্ডনে ন্যাচারাল হিস্ট্রি মিউজিয়ামের গ্রহবিজ্ঞানবিষয়ক বিজ্ঞানের অধ্যাপক বলেন, ‘ওই আকরিক যদি উপরিভাগের বস্তু হয় তাহলে চাঁদের উৎপত্তি নিয়ে গবেষণার জন্য বেশ কাজে দেবে।’

ওই গবেষণা প্রতিবেদনের লেখক ও ন্যাশনাল অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল অবজারভেটরিস অব চায়নিজ একাডেমি অব সায়েন্সেসের অধ্যাপক এক বিবৃতিতে বলেন, ‘চাঁদের উপরিভাগের গঠনপ্রকৃতি জানতে এই বস্তুর পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। এই পরীক্ষা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। চাঁদে লুপ্ত সাগর আছে কি না, সেটা নিরূপণ করতেও সাহায্য করবে নতুন এই বস্তু। সর্বোপরি চাঁদের উৎপত্তির রহস্য উদঘাটনে কাজে দেবে এটি।’

দেখার বিষয় হচ্ছে চীনের এই মনুষ্যবিহীন রোবটযান চাঁদের আর কি কি নতুন তথ্য নিয়ে আসে বিজ্ঞানীদের জন্য যার থেকে জানা যাবে চাঁদের রহস্য সম্পর্কে।