এখন মানিব্যাগও হবে স্মার্ট




ডিজিটাল এই যুগে এসে সবকিছুর ইলেকট্রনিক বিকল্প তৈরি হয়ে যাচ্ছে। প্রয়োজন ফুরিয়ে যাচ্ছে অনেক জিনিসের। স্মার্টফোন আর তাতে থাকা অসংখ্য অ্যাপ্লিকেশন ও ফিচারই দিচ্ছে অনেক কিছুর সমাধান।
এরকমই একটি বস্তু মানিব্যাগ। টাকা, ভিজিটিং কার্ড, টিকিট- একসময় কত কিছু স্থান পেত এই মানিব্যাগে। কিন্তু বর্তমানে মানিব্যাগের ব্যবহার অনেকটাই কমে এসেছে।
আর তাই এই একুশ শতকে এসে মানিব্যাগকে যুগোপযোগী করতে এগিয়ে এসেছে এক উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান। ‘ভোল্টারম্যান’ নামে ওয়ালেট তৈরি করার জন্য ইন্ডিয়েগোগো সাইটে প্রচার ও তহবিল সংগ্রহ শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এ ওয়ালেটকে তারা বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী ওয়ালেট বলছে। এটি একাধারে পাওয়ার ব্যাংক ও ওয়াই-ফাই হটস্পট আকারে কাজ করবে। এর নিরাপত্তার জন্যও আছে বিশেষ ফিচার। এতে দূর থেকে অ্যালার্ম শোনার সুবিধা, জিপিএস ট্র্যাকিং ও ছোট ক্যামেরা যুক্ত করা আছে।
২০১৪ সাল থেকে এ মানিব্যাগ তৈরির ধারণা নিয়ে কাজ করছেন উদ্যোক্তারা। আজাত নামের এক উদ্যোক্তার ভাষ্য, তাঁর তিন বছরের মেয়ে ওয়ালেট লুকিয়ে রাখার পর তিনি দীর্ঘদিন আর সেটি খুঁজে পাননি। তিনি বাজারে ব্লুটুথ সুবিধার ওয়ালেট খুঁজতে যান। কিন্তু তাতে দূরত্ব সীমা নির্দিষ্ট করা ছিল। এরপর থেকে তাঁর মাথায় স্মার্ট ওয়ালেট তৈরির চিন্তা আসে। দুই বছর ধরে পরীক্ষা, প্রটোটাইপ তৈরি, নকশা ও ক্রাউড ফান্ডিং কর্মসূচি চালিয়েছেন। এবারে ওই স্মার্ট মানিব্যাগ বাজারে ছাড়ার পালা।
এ মানিব্যাগ ভুলে ফেলে আসার উপায় নেই। এতে আছে ব্লুটুথ অ্যালার্ম সিস্টেম যা নির্দিষ্ট দূরত্বে গেলে উপস্থিতি জানান দেবে। এ ছাড়া কোনো ফোন ফেলে গেলেও এ মানিব্যাগ দিয়ে তা খোঁজা যাবে। মানিব্যাগে একটি পুশ বোতাম আছে যা চাপলে ফোন বেজে উঠবে। ফোন যদি সাইলেন্ট মোডে থাকে তাতেও সমস্যা নেই।