শেষ ওভারে বিশ্ব একাদশের শ্বাসরুদ্ধকর জয়




শেষ বলের আগেই খেলা শেষ। থিসারা পেরেরার বিশাল ছক্কায় এক বল আগেই জয়ের বন্দরে বিশ্ব একাদশ। টানটান উত্তেজনার এই ম্যাচে তারা পাকিস্তানকে হারিয়েছে ৭ উইকেটে।
এর আগে প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান সংগ্ৰহ করে ১৭৪ রান। শুরুতে ফখর জামান ও আহমেদ শেহজাদের ৪১ রানের জুটি ভাঙেন স্যামুয়েল বদ্রী। এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে ২১ রান করে আউট হন ফখর জামান। এরপর ৪৩ রান করা শেহজাদকে ফেরান ইমরান তাহির। দলীয় সংগ্ৰহ তখন ১০০। গত ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা বাবর আজম আজ করে ৪৫ রান। স্যামুয়েল বদ্রী’র দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরেন তিনি। এরপর ৩৮ রান করা শোয়েব মালিককে বেন কাটিং, ১৫ রান করা ইমাদ ওয়াসিমকে ও অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদকে শূন্য রানে ফেরান থিসারা পেরেরা। আর তাতেই নির্ধারিত ২০ ওভারে পাকিস্তান সংগ্ৰহ করে ১৭৪ রান।
১৭৫ রানের লক্ষ্যে নেমে সাবধানী শুরু করেন বিশ্ব একাদশের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও হাশিম আমলা। ২৩ রান করে সোহেল খানের বলে আউট হন তামিম। কিন্তু আমলা একপ্রান্ত আগলে লড়াই করে যান। টিম পেইন ১০ ও ফাফ ডু প্লেসি ২০ রানে আউট হলে ১০৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে বিশ্ব একাদশ। কিন্তু ওপর প্রান্তে দাঁড়িয়ে থাকা হাশিম আমলা তুলে নেন অর্ধ শতক। এরপরই শুরু হয় থিসারা পেরেরা ঝড়।
শেষ দুই ওভারে বিশ্ব একাদশের তখন দরকার ৩২ রান। ১৯তম ওভারে পেরেরার কল্যাণে আসে ১৯ রান। শেষ ওভারে এক বল হাতে রেখেই জয় ছিনিয়ে আনে বিশ্ব একাদশ। পেরেরা পাঁচ ছক্কায় ১৯ বলে ৪৭ রানে অপরাজিত থাকেন। অন্যদিকে ম্যাচ সেই হাশিম আমলা ৫৫ বল খেলে অপরাজিত থাকেন ৭২ রানে।
এই জয়ে বিশ্ব একাদশ ও পাকিস্তানের তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ ১-১ এ সমতা। প্রথম টি২০ তে পাকিস্তান জিতেছিল ২০ রানে