বায়ার্নের বিপক্ষে খেলেই আজ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ মিশন শুরু বার্সার




২০১৯-২০ মৌসুমের কোয়ার্টার ফাইনালের ঘটনা। করোনার বাঁধায় বন্ধ হওয়া চ্যাম্পিয়ন্স লিগ বন্ধ হওয়ার পর যখন আবার চালু হলো, নিজেদের ইতিহাসের সবচেয়ে লজ্জাতম ঘটনার সাক্ষী হতে হয়েছিল স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনাকে। লিওনেল মেসি, লুই সুয়ারেসদের মতো তারকাদের নিয়েও বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৮-২ গোলে বিধ্বস্ত হওয়ার ক্ষত এত সহজে শুকিয়ে যাওয়ার কথা নয়।

সেই স্মৃতি ফিরে আসছে আবার।  বার্সেলোনার দুর্গ ক্যাম্প ন্যুতে আবারও মুখোমুখি ইউরোপের দুই পরাশক্তি। এবার আর নকআউট নয়, চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বেই লড়বে বার্সেলোনা আর বায়ার্ন মিউনিখ।

৮-২ গোলের সেই ম্যাচের পর বদলে গেছে বার্সেলোনা। রোনাল্ড কোম্যানের হাত ধরে নতুন করে শুরু করা কাতালানরা অবশ্য ব্যর্থই ছিল গত মৌসুমে। এবার অর্থনৈতিক টানাপড়েনে প্রাণভোমরা লিওনেল মেসি, আন্তোয়ান গ্রিয়েজমানসহ ক্লাব ছেড়েছেন ১০ জনের বেশি খেলোয়াড়।

ইনজুরিতে ১০ নম্বর জার্সি পাওয়া আনসু ফাতি, উসমান দেম্বেলে, মার্টিন ব্রাথওয়েট ও সের্হিয়ো আগুয়েরো। তাই ফরোয়ার্ড হিসেবে ফিলিপ্পে কৌতিনিয়োর সঙ্গে সেভিয়া থেকে আসা লুক ডি ইয়ংকে খেলাবেন কোম্যান। এ ছাড়া মেমফিস দেপেই, পেদ্রি, ফ্রাংকি ডি ইয়ং, জেরার্দ পিকে, টের স্টেগেনদের নিয়ে সমীহ জাগানিয়া দলই বার্সেলোনা।

লা লিগায় নতুন মৌসুমে তিন ম্যাচে দুটি জয় আর একটি ড্র আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে অধিনায়ক সের্হিয়ো বুশকেেজর, ‘মেসির চলে যাওয়া অনেক বড় আঘাত। এর পরও এগিয়ে যেতে হবে আর সেই সামর্থ্য আছে দলের।’ দর্শকরা অবশ্য এতটা আত্মবিশ্বাসী নন, তাই এখনো বিক্রি হয়নি গ্যালারির অনেক টিকিট।

তবে বায়ার্নকে এবার বার্সা কোচ রোনাল্ড কোম্যান দিয়ে রাখলেন প্রচ্ছন্ন হুমকি, ‘বছরখানেকের বেশি হয়ে গেছে আর অনেকেই ভুগেছে সেই ম্যাচে। আমাদের এখন ভালো একটা দল আছে, যারা ভোগাতে পারে বায়ার্নকে। নিজেদের চেনা খেলাটা খেলেই প্রতিপক্ষকে কঠিন সময় দিতে পারি আমরা।’

১৯৯৮-৯৯ মৌসুমের পর এবারই প্রথম গ্রুপ পর্বে দেখা হচ্ছে বার্সা-বায়ার্নের। সেবার প্রথম লেগে ১-০ আর ফিরতি লেগে ২-১ গোলে জেতে বায়ার্ন। ৮-২ গোলের ঐতিহাসিক সেই ম্যাচের একাদশে থাকা সাতজন থাকবেন আজ ন্যু ক্যাম্পেও। গত মৌসুমে রেকর্ড ৪১ গোল করা রবার্ত লেভানদোস্কিকে আটকাতে না পারলে ভুগতে হবে বার্সাকে।

তা ছাড়া ইউলিয়ান নাগেলসমানের দলের অন্যরাও ছন্দে। জার্মান কাপে তারা ১২-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে ব্রেমারকে। বুন্দেসলিগার সর্বশেষ দুই ম্যাচে হার্থাকে ৫-০ আর লিপজিগকে উড়িয়ে দিয়েছে ৪-১ গোলে। এ জন্য আত্মবিশ্বাসী বায়ার্নের প্রধান নির্বাহী অলিভার কান, ‘আমরা এখনো ভীষণ শক্তিশালী একটা দল আর ফেভারিট হয়ে খেলব প্রতিটি টুর্নামেন্ট।’

নতুন মৌসুমের প্রথম দিন আজ অভিযান শুরু হচ্ছে চ্যাম্পিয়নস লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চেলসিরও । স্টাম্পফোর্ড ব্রিজে তাদের প্রতিপক্ষ জেনিত। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড মুখোমুখি হবে ইয়াং বয়েজের, জুভেন্টাসের প্রতিপক্ষ মালমো আর সেভিয়ার প্রতিপক্ষ সলসবুর্গ।