আর বিয়ে করবো না: ইমরান খান


imran khan @paperslife

গত বছর তৃতীয় বিয়ে করেছিলেন ইমরান খান। সম্প্রতি গুঞ্জন উঠেছিলো বিবাহবিচ্ছেদের। জবাবে, বর্তমান স্ত্রী বুশরা মানেকা বিবির সঙ্গে জীবনের শেষনিশ্বাস পর্যন্ত থাকতে চান বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

পাকিস্তানের একটি টেলিভিশনে দেওয়া সাক্ষাৎকারে গত শনিবার রাতে তিনি এ কথা জানান।

তৃতীয় স্ত্রী বুশরা মানেকা বিবি সম্পর্কে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বুশরা আমার জন্য আল্লাহর রহমত। আমাদের মধ্যে সমস্যা থাকার প্রশ্নই আসে না। বুশরার সঙ্গে জীবনের শেষনিশ্বাস পর্যন্ত থাকতে চাই।’

যদিও একথা গত বছর তৃতীয় বিয়ের সময়ও ইমরান খান বলেছিলেন, এ বিয়ে ‘তৃতীয় এবং শেষ বিয়ে।’

গুঞ্জন উঠেছিলো মূলত নির্বাচন ইস্যুতে। জয়ী হয়ে সরকার গঠন করার পর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই বুশরা বিবির সঙ্গে ইমরানের সম্পর্কের অবনতি হয় বলে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হতে থাকে।

১৯৯৬ সালে পিটিআই গঠন করে তিনি রাজনীতি শুরু করেন। দল গঠনের ২২ বছর পর ১১তম সাধারণ নির্বাচনে জয়ী হয়ে প্রধানমন্ত্রী হন তিনি।

এর আগে এক সাক্ষাৎকারে বুশরা বিবি বলেছিলেন, ‘ইমরান খান খুবই সাধারণ জীবন যাপন করেন। তার মধ্যে কোনো লোভ-লালসা নেই।’

Imran-Khan marriage #paperslife

তার মতে, শুধু ইমরান খানই পাকিস্তানে পরিবর্তন আনতে পারেন। তবে পরিবর্তন আসতে সময় লাগবে। কারণ ইমরান খান শুধু পাকিস্তানের নেতা নন, তিনি পুরো মুসলিম বিশ্বের নেতা।

প্রসঙ্গত, ১৯৯২-এ পাকিস্তানের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ইমরান খান ২০১৮ সালে তৃতীয়বারের মতো তার আধ্যাত্মিক ধর্মগুরু বুশরা মানেকার সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। অনেকে বুশরাকে ডেকে থাকেন ‘বুশরা বিবি’ বা ‘পিংকি পীর’ হিসেবে।

এর আগে, ১৯৯৫ সালে ব্রিটিশ নাগরিক জেমিমা গোল্ডস্মিথকে বিয়ে করেছিলেন ইমরান খান। ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে পাকিস্তানের লাহোরে থাকতেন জেমিমা। কিন্তু ইহুদি পরিবারে জন্ম হওয়ায় পাকিস্তানের মানুষ তাকে তেমন পছন্দ করতে পারেননি।

৯ বছর পর ইমরান আর জেমিমার ঘর ভাঙে ২০০৪ সালে। জেমিমার গর্ভে জন্ম নেওয়া দুই ছেলে আছে ইমরান খানের। বিচ্ছেদের পর দুই ছেলে সুলাইমান খান ও কাশিম খানকে নিয়ে যুক্তরাজ্যেই থাকেন জেমিমা গোল্ডস্মিথ।

২০১৫ সালে ইমরান বিবাহবন্ধনে জড়িয়েছিলেন বিবিসির টিভি উপস্থাপক, সাংবাদিক রেহাম খানের সঙ্গে। বিয়ে স্থায়ী হয়েছিল ১০ মাস।