কনের শাড়ি পছন্দ না হওয়ায় ছেলেকে পালানোর পরামর্শ




শাড়ি পছন্দ হয়নি বরের অভিভাবকের, আর সে কারণেই ভেঙ্গে গেছে  বিয়ে! সম্প্রতি এমন বিরল ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের কর্ণাটকের হাসসান শহর সংলগ্ন একটি গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কর্ণাটকের হাসসান শহর সংলগ্ন একটি গ্রাম বাস করেন অভিযুক্ত পাত্র বিএন রঘুকুমার ও পাত্রী বি আর সংগীতা। এক বছর আগে স্থানীয় ওই যুবক-যুবতীর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

এরপর বাড়ির লোকের সঙ্গে কথা বলে সংগীতার সঙ্গে বিয়ের দিন ঠিক করে রঘুকুমার।

এ পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল। তবে, নিয়তির খেলা বোঝা কি এতই সহজ? আর তাইতো সব ঠিক থাকার পরও কেবল একটি শাড়িকে কেন্দ্র করে সব পরিকল্পনাই ভেস্তে যায়।

গত বুধবার, বিয়ের আগের দিন লোকাচারের একটি অনুষ্ঠানে কনের পরনে থাকা শাড়ি পছন্দ হয়নি রঘুকুমারের বাবা-মার। তাই সংগীতাকে ওই শাড়িটি পরিবর্তন করতে বলেন তারা। কিন্তু, রাজী হননি সংগীতা। এ নিয়ে পাত্রীর পরিবারের সঙ্গে তুমুল গন্ডগোল হয় পাত্রের বাবা-মা ও অন্য আত্মীয়দের।

বাড়ি ফিরে রঘুকুমারকে তারা বলেন, কোনওভাবেই সংগীতার সঙ্গে তার বিয়ে তারা মেনে নেবেন না। পাত্রকে পালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন পরিবারের সদস্যরা। এ কথা শুনে বিয়ের দিন সকালে বাড়ি থেকে পালিয়ে যান বর।

বিয়ের প্রস্তুতি সম্পন্ন হওয়ার পরেও বরের পাত্তা নেই দেখে খোঁজখবর নিতে শুরু করেন মেয়ের বাড়ির লোকজন। পরে তারা জানতে পারেন যে পরিবারের লোকদের পরামর্শে বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে পাত্র।

বাধ্য হয়ে,  মেয়ের পরিবার এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করে। তার ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। পলাতক রঘুকুমারের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানা গেছে।

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন