‘টিকটক কথা শুনতে শুরু করেছে’


‘টিকটক কথা শুনতে শুরু করেছে'


বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে টিকটক বাংলাদেশ থেকে প্রায় ৫০ লাখ ভিডিও সরিয়েছে। ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের গত বৃহস্পতিবার ফেসবুকের ভেরিফায়েড পেযে এমনই একটি পোস্ট দিয়েছেন। পোস্টে তিনি লিখেছেন ‘টিকটক কথা শুনতে শুরু করেছে।’ পোস্টের সঙ্গে মন্ত্রী একটি স্ক্রিনশটও দিয়েছেন।

জানা গেছে গত ২৮ সেপ্টেম্বর জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টিকটক ‘কমিউনিটি গাইডলাইন এনফোর্সমেন্ট রিপোর্ট’ প্রকাশ করেছে। সেখানে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ থেকে ভিডিও সরানো হয়েছে ৪৯ লাখ ৭৪ হাজার ৮৩৮টি। এর মধ্যে স্ব–উদ্যোগী হয়ে টিকটক ৯৯ দশমিক ২ শতাংশ, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৯৬ দশমিক ১ শতাংশ এবং কোনো ভিউ হওয়ার আগেই সরানো হয়েছে ৯৬ দশমিক ৩ শতাংশ ভিডিও।

এর আগের বছরের প্রথম প্রান্তিক জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশের ৩৪ লাখ ৭৫ হাজার ৪৫৬টি ভিডিও সরিয়ে নিয়েছিল টিকটক। ভিডিও সরিয়ে নেওয়ার শীর্ষ ৩০টি দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ষষ্ঠ। শীর্ষ পাঁচটি দেশ হচ্ছে—যুক্তরাষ্ট্র, পাকিস্তান, ফিলিপাইন ও ইন্দোনেশিয়া।

আরও পড়ুনঃ “বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে”

ভিডিও শেয়ার মাধ্যম টিকটক আত্মহত্যা, নিজের ক্ষতি ও বিপজ্জনক ভিডিও ৬ দশমিক ১ শতাংশ, হয়রানি ও বুলিংয়ের কারণে ৫ দশমিক ৭ শতাংশ, উগ্র ও গ্রাফিক কনটেন্ট ৯ দশমিক ৩ শতাংশ, নগ্নতা ও যৌনতা–সম্পর্কিত কনটেন্ট ১০ দশমিক ৭ শতাংশ, অনৈতিক কার্যকলাপের কারণে ২১ দশমিক ২ শতাংশ এবং সংখ্যালঘু বিবেচনায় ৪৩ দশমিক ৭ শতাংশ কনটেন্ট সরিয়েছে টিকটক।

এই সময়ের মধ্যে টিকটক ভুয়া অ্যাকাউন্ট সরিয়েছে ৩ কোটি ৩৬ লাখ ৩২ হাজার ৫৮টি, ১৩ বছর বয়সের নিচে সন্দেহ হওয়ায় অ্যাকাউন্ট সরিয়েছে ২ কোটি ৫ লাখ ৭৫ হাজার ৫৬টি এবং অন্যান্য কনটেন্ট সরিয়েছে ৫২ লাখ ২২ হাজার ৯৬৮টি।