প্রথমবারের মত বিদেশি ভাষায় অস্কার জিতলো প্যারাসাইট!



প্রথমবারের মত বিদেশি ভাষায় অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের ৯২তম আসরে সেরা চলচ্চিত্রের পুরস্কার জিতলো দক্ষিণ কোরিয়ার প্যারাসাইট। অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের ৯২ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথম ইংরেজি ব্যতিত অন্য কোনও ভাষার ছবি সেরা চলচ্চিত্রের সম্মান পেলো।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের লস অ্যাঞ্জেলেসের হলিউড অ্যান্ড হাইল্যান্ড সেন্টারের ডলবি থিয়েটারে ৯ জানুয়ারি রাতে (বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী ১০ ফেব্রুয়ারি সকাল) অনুষ্ঠিত হয় চলচ্চিত্র দুনিয়ার সবচেয়ে সম্মানজনক পুরস্কার অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের (অস্কার) ৯২তম আয়োজন।

প্রতি বছরের মতো এবারও সেরা ছবি, সেরা পরিচালক, সেরা অভিনয়শিল্পী, সেরা প্রামাণ্যচিত্রসহ ২৪টি বিভাগে পুরস্কার দিয়েছে অ্যাকাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস।

এবিসি নেটওয়ার্কের মাধ্যমে এই আয়োজন সরাসরি সম্প্রচার হয়েছে বিশ্বের ২২৫টিরও বেশি দেশে। গতবারের মতোই অস্কারে কোনও সঞ্চালক ছিলনা। মূল আয়োজন শুরুর আগে লালগালিচায় পা মাড়িয়েছেন তারকারা। লালগালিচায় তারকাদের অনুভূতি নিয়েছেন এমি অ্যাওয়ার্ড বিজয়ী টিভি উপস্থাপক রায়ান সিক্রেস্ট, এমি-টনি-গ্র্যামি জয়ী গায়ক-অভিনেতা বিলি পর্টার, সুপারমডেল লিলি অ্যালড্রিজ, সাংবাদিক ও টক শো উপস্থাপক টেমরন হল ও আমেরিকান চলচ্চিত্র বোদ্ধা এলভিস মিচেল।

এবার অস্কারকে বর্ণ ও ‘ফ্রোজেন টু’ ছবির ইন্টু দ্য আননৌন’ (কথা ও সুর ক্রিস্টেন অ্যান্ডারসন-লোপেজ ও রবার্ট লোপেজ) গেয়ে শোনান ইডিনা মেনজেল ও অরোরা। তাদের সঙ্গে মঞ্চে যোগ দেন বিভিন্ন দেশে ‘ফ্রোজেন টু’র এলসা চরিত্রে কণ্ঠ দেওয়া অভিনেত্রীরা। এর মধ্যে ছিল থাইল্যান্ড, জাপান, স্পেন, ডেনমার্ক, রাশিয়া ও পোল্যান্ড।

‘ব্রেকথ্রো’ ছবিতে ডায়েন ওয়ারেনের কথা ও সুরে “আই’ম স্ট্যান্ডিং উইথ ইউ” পরিবেশন করেন আমেরিকান গায়িকা ক্রিসি মেৎজ। ‘হ্যারিয়েট’ ছবির ‘স্ট্যান্ড আপ’ গেয়েছেন সিনথিয়া এরিভো। তার সঙ্গে মিলে এটি লিখেছেন ও সুর করেছেন জশুয়া ব্রায়ান ক্যাম্পবেল। ব্রিটিশ তারকা স্যার এলটন জন পরিবেশন করবেন ‘রকেটম্যান’ ছবিতে নিজের সুর করা “আই’ম গনা লাভ মি অ্যাগেইন” (গীতিকার বার্নি টাউপিন)।

শুরুতে মঞ্চে এসে লাল ব্লেজার পরেন আমেরিকান কৃষ্ণাঙ্গ গায়িকা জানেল মোনেই। এরপর গান গাইতে গাইতে অতিথি সারিতে গিয়ে টম হ্যাঙ্কসের মাথায় টুপি পরিয়ে দেন তিনি। পরে তার সঙ্গে সংগীত পরিবেশনায় যোগ দেন বিলি পর্টার।

এই আসরে সেরা চলচ্চিত্র বিভাগে ফেবারিট ছিল স্যাম মেন্ডেসের ‘নাইনটিন সেভেনটিন’।

এসএজি’র ২৬ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথম ইংরেজি ব্যতিত অন্য ভাষার কোনও ছবি সম্মিলিত অভিনয়শিল্পী বিভাগে সেরা হয়েছে।
দক্ষিণ কোরিয়ার জন্য এবারের আসর থেকে অনেক পুরস্কার জিতেছেন বং জুন-হো।

তবে এর আগে স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড অ্যাওয়ার্ডে সেরা সম্মিলিত অভিনয়শিল্পী স্বীকৃতি পেয়ে সবাইকে চমকে দিয়েছিল ‘প্যারাসাইট’।
এছাড়াও, সেরা চলচ্চিত্র বিভাগে মনোনয়ন পেয়েছে মার্টিন স্করসেজির ‘দি আইরিশম্যান’ কোয়েন্টিন টারান্টিনোর ‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন হলিউড’, জেমস ম্যানগোল্ডের ‘ফোর্ড ভার্সাস ফেরারি’, তাইকা ওয়াইতিতির ‘জোজো র্যাবিট’, টড ফিলিপসের ‘জোকার’, গ্রেটা গারউইগের ‘লিটল উইমেন’, নোয়া বাউমবাকের ‘ম্যারেজ স্টোরি’।
সেরা পরিচালক এবং সেরা মৌলিক চিত্রনাট্যকার বিভাগে পুরস্কার জিতেছেন বং জুন-হো। এছাড়া ‘প্যারাসাইট’ সেরা আন্তর্জাতিক কাহিনি হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।