বার্সেলোনায় মেসি থাকলে শহরের যত লাভ


messsi


বার্সেলোনায় মেসি থাকছেন, এই থাকা আর না থাকা নিয়ে অথবা প্রিয় বা পছন্দ বিবেচনায় লিওনেল মেসির অনেক গল্প রয়েছে; আজ অপর পৃষ্ঠার গল্প করা যাক।

বার্সেলোনায় মেসি থাকলে ক্লাবটির অনেক লাভ। সেরা তারকাকে ধরে রাখলে প্রাপ্তি তো শুধু মাঠে নয়, মাঠের বাইরেও। লাভের গুড়ের ভাগ শুধু ক্লাব নয়, বার্সেলোনা শহরও।

শহরে ঘুরতে আস পর্যটকদের আলাদা নজর থাকে মেসির ওপর। যদিও বার্সেলোনা শহরের ব্যাপারই আলাদা। সেখানে তারকা তো শুধু মেসি নয়। তবু পর্যটকদের ভাবনায় থাকে ক্যাম্প ন্যু-তে সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলারকে যদি দেখতে পাই। ব্যাগ গোছানোর সময় মেসির কথা নিশ্চয়ই তাদের মাথায় থাকে। মেসি না থাকলে এ ভাবনাটায় ভাটা পড়তো।

পর্যটন থেকে স্পেনের এ শহরটির আয়েও ভূমিকা থাকছে আর্জেন্টাইন তারকার। স্পেনের এসপিএসজি কনসালটিং ফার্মের প্রধান নির্বাহী কার্লোস কান্তো’র বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম মার্কা জানিয়েছে, টিকিটি কেটে ক্যাম্প ন্যু তে মেসির খেলা দেখতে যাওয়ার আগ্রহটা বেশ ভালোই দেখা যায় পর্যটকদের মধ্যে। অর্থাৎ মেসি থেকে যাওয়ায় বার্সার ‘গেট মানি’ থেকে আয় কমে যাওয়ার সম্ভাবনাটা নেই। আর মেসিকে দেখতে এসে পর্যটকদের বার্সেলোনা শহরে ঘোরাফেরা ও থাকা থেকে আয় তো আছেই স্থানীয় প্রশাসনের।

কান্তো বলেন, ‘টিকিটের কথা বিবেচনা করলে, ২০০-৩০০ ইউরো খরচ করে বিশ্বের সেরা ফুটবলারকে দেখার আগ্রহ আছে পর্যটকদের মধ্যে। ৫ থেকে ১০ শতাংশ পর্যটকের বার্সেলোনা শহরে আসার পেছনে প্রধান অগ্রাধিকার থাকে এটা।

মেসি শুধু পর্যটক এবং ভক্তদেরই আকর্ষণ নন, খুদে ফুটবলারদেরও। বিশ্বের অন্যতম সেরা ফুটবলার যে ক্লাবে থাকবেন সেখানকার একাডেমিতে খুদে ফুটবলারদের ভর্তি হওয়ার ঝোঁকটা একটু বেশিই হবে।

খেলাধুলা, বিজ্ঞাপন, বিনোদজন জগতে ব্র্যান্ডিংয়ের কাজ করা ‘দ্য কানেক্ট’ এর প্রতিষ্ঠাতা রায়েদ লুইস বায়েজ জানিয়েছেন, ‘মাথায় রাখতে হবে মেসির জার্সি বিক্রি হয়, আমার যদি ভুল না হয় অঙ্কটা প্রায় ২ মিলিয়ন ইউরো। টাকাটা বড় অঙ্কের এবং তা খুব দ্রুতই পুষিয়ে নেওয়া কঠিন।’ ‘বার্সেলোনার ব্র্যান্ডও গুরুত্বপূর্ণ তবে মেসি থাকলে সেটা বোনাস,’ বললেন কার্লোস কান্তো