বিশ্বের রোহিঙ্গাদের অর্ধেকই বাংলাদেশে



বিশ্বব্যাপী মোট রোহিঙ্গার প্রায় অর্ধেকই অবস্থান করছে বাংলাদেশে। এর ফলে আর্থ-সামাজিক চাপ বাড়ছে দেশের ওপর।

জাতিসংঘের অভিবাসন ও শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা, রিলিফ ওয়েব এবং সংশ্লিষ্ট দেশের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে আছে রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীর প্রায় ২৮ লাখ ৯ হাজার মানুষ। এর মধ্যে ১৩ লাখই অবস্থান করছে বাংলাদেশে। এরপর সবচেয়ে বেশি রোহিঙ্গা রয়েছে সৌদি আরবে, প্রায় পাঁচ লাখ।

তবে রোহিঙ্গাদের নিজ ভূমি মিয়ানমারে সংখ্যাটা এখন মাত্র চার লাখ।

এছাড়া পাকিস্তানে সাড়ে তিন লাখ, মালয়েশিয়ায় দেড় লাখ, সংযুক্ত আরব আমিরাতে ৫০ হাজার ও ভারতে ৪০ হাজার রোহিঙ্গা অবস্থান করছে। এর বাইরে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছে রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীর ১২ হাজার, থাইল্যান্ডে পাঁচ হাজার, ইন্দোনেশিয়ায় এক হাজার, জাপানে ৩০০, নেপালে ২০০, কানাডায় ২০০, আয়ারল্যান্ডে ১০৪ ও শ্রীলংকায় ৩৬ জন। অর্থাৎ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা রোহিঙ্গাদের ৪৬ দশমিক ২৮ শতাংশের অবস্থান বাংলাদেশে।

বাংলাদেশের ১৩ লাখ রোহিঙ্গার মধ্যে সাত লাখের বেশি এসেছে ২০১৭ সালের আগস্টের পর। এর বাইরে গত মাস দেড়েকে ভারত থেকে এখানে আশ্রয় নিয়েছে ১ হাজার ২০০-এর বেশি রোহিঙ্গা। আর গত মে মাস থেকে ধরলে এ সংখ্যা আড়াই হাজারের বেশি। অনানুষ্ঠানিক হিসাবে এটি আরো বেশি হতে পারে বলে ধারণা সংশ্লিষ্টদের।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, গত ডিসেম্বরে ভারত থেকে বাংলাদেশে এসেছে রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীর ৬৩১ জন মানুষ। এছাড়া চলতি জানুয়ারির প্রথম ১৩ দিনেই দেশটি থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে ৫৮৫ জন রোহিঙ্গা।

আরও পড়ুন;
রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে সাধ্যমত চেষ্টা করবে তুরস্ক
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সহযোগিতার প্রস্তাব জাপানের  রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সহযোগিতা করবে চীন
রোহিঙ্গা সংকট: সু চির সঙ্গে ট্রুডোর বৈঠক  
রোহিঙ্গা সংকট: বছরে লাগবে সাত হাজার কোটি টাকা
রোহিঙ্গাদের ফেরাতে চারটি শর্ত দিয়েছে মিয়ানমার
সোমবার থেকে ফের রোহিঙ্গাদের খাদ্য সহায়তা শুরু
রোহিঙ্গা সংকট: মিয়ানমারে ফিরতে চায় ৭৮% রোহিঙ্গা     
রোহিঙ্গা সংকট: হত্যা করা হয়েছে ৬,৭০০ রোহিঙ্গাকে