ভারতে সবচেয়ে বেশি ঘটছে তথ্য বেহাতের ঘটনা



বৈশ্বিক গড়ের চেয়ে তথ্য বেহাতের ঘটনা ভারতে বেশি ঘটছে। প্রতিরক্ষা গ্রেডের প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা থালেস পরিচালিত এক জরিপ প্রতিবেদনে এমন তথ্যই উঠে এসেছে।

থালেস ই-সিকিউরিটির দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের বিক্রয় বিভাগের পরিচালক জেমস কুক ‘থালেস ডাটা থ্রেট রিপোর্ট ২০১৮’-শীর্ষক প্রতিবেদনের বিস্তারিত তুলে ধরে বলেন, জরিপে অংশ নেয়া ৫২ শতাংশ ভারতীয় জানিয়েছেন, তারা গত বছর তথ্য বেহাতের শিকার হয়েছেন। যেখানে এ ধরনের ঘটনার বৈশ্বিক গড় ৩৬ শতাংশ। এছাড়া এক-তৃতীয়াংশ ভারতীয় জানান, অতীতে কোনো না কোনো সময় তাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বেহাত হয়েছে। অথচ বিশ্বব্যাপী ৬৭ শতাংশ ডিজিটাল সেবা ব্যবহারকারীর অতীতে কোনো না কোনো সময় তথ্য বেহাত হয়েছে।

২০১৭ সালের অক্টোবর-নভেম্বর সময়ে বিশ্বব্যাপী ১ হাজার ২০০ জ্যেষ্ঠ তথ্যপ্রযুক্তি (আইটি) নিরাপত্তা ব্যবস্থাপকের ওপর জরিপ চালিয়ে প্রতিবেদনটি তৈরি করে থালেস। এর মধ্যে ১০০ ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবস্থাপক আছেন। ভারতীয় যেসব প্রতিষ্ঠানের রাজস্ব ১০ থেকে ১০০ কোটি ডলার, সেসব প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপকদের জরিপের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

থালেস ইন্ডিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং কান্ট্রি ডিরেক্টর ইমানুয়েল ডি রুকুফিল বলেন, চলতি বছর ‘ইন্ডিয়া ডাটা থ্রেট রিপোর্ট ২০১৮’-এ নিরাপত্তা কৌশল পরিবর্তনের ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। কারণ ভারতে তথ্য বেহাতের ঘটনা অন্য অঞ্চলের চেয়ে দ্রুত বাড়ছে। একই সঙ্গে ভারতীয়দের মধ্যে কীভাবে গোপনীয়তা এবং ব্যক্তিগত তথ্যের নিরাপত্তা বিষয়ে সচেতনতা বাড়ানো যায়, সে বিষয়ে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

জেমস কুকের ভাষ্যে, বিশ্বের যেকোনো অঞ্চলের চেয়ে ভারতে তথ্য বেহাতের ঘটনা বৃদ্ধির পেছনে কিছু কারণ রয়েছে। এর অন্যতম হলো ভারতীয় প্রতিষ্ঠানগুলো তথ্য নিরাপত্তা বাজেটের অর্থ ভুল জায়গায় ব্যয় করছে। তথ্য নিরাপত্তার জন্য ভারতীয়রা সবসময় এন্ডপয়েন্টে বা মোবাইল ডিভাইসের নিরাপত্তায় গুরুত্ব দিচ্ছেন, যা সঠিক নয়।

জরিপের তথ্যমতে, ৮১ শতাংশ ভারতীয় মোবাইল ডিভাইসকেন্দ্রিক তথ্যের নিরাপত্তা জোরদারে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছেন। এক্ষেত্রে নিরাপত্তা বাজেটের সিংহভাগ ব্যয় করা হচ্ছে। অথচ ডিজিটাল সেবা ব্যবহারকারীদের ৫৪ শতাংশ তথ্য অনলাইন আর্কাইভ, হার্ড ড্রাইভ ও থাম্ব ড্রাইভসহ বিভিন্ন স্টোরেজ ডিভাইসে সংরক্ষণ করা হলেও এসব ডিভাইসের নিরাপত্তা জোরদারে খুব একটা গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে না।

জেমস কুক বলেন, আধার কার্ডের কারণে ভারতে ডিজিটাল নিরাপত্তা ব্যয় বেড়েছে। জরিপে অংশ নেয়া ৯৩ শতাংশ ভারতীয় প্রতিষ্ঠানই আধার কার্ডের কারণে তথ্যপ্রযুক্তি নিরাপত্তা ব্যয় বাড়ানোর পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে, যা বিশ্বের যেকোনো দেশের প্রতিষ্ঠানের তথ্যপ্রযুক্তি নিরাপত্তা ব্যয়ের চেয়ে বেশি।

তথ্যপ্রযুক্তি পণ্যের অন্যতম বৃহৎ বাজার ভারত। দেশটির কোম্পানিগুলোয় এখন অ্যাডভান্সড প্রযুক্তি যেমন বিগ ডাটা, ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি), মোবাইলভিত্তিক লেনদেন সেবা ও ব্লকচেইন প্রযুক্তি বড় পরিসরে ব্যবহার হচ্ছে। জরিপে অংশ নেয়া প্রতিটি ভারতীয় প্রতিষ্ঠান ক্লাউড প্রযুক্তি ব্যবহার করছে। দেশটি থেকে জরিপে অংশ নেয়া ৯২ শতাংশই জানায়, তারা ক্লাউড সিস্টেমের মাধ্যমে তথ্য শেয়ার করছেন।