মৃত্যু | শহিদুর রহমান




ভুলে কি গিয়েছি আমি?
আমার প্রকৃত সেই সুরু ঘরটিকে!
সেথায় থাকবে না কিরণ-পবন,
সঙ্গে যাবে না কেহ,
শায়িত রবে মোর অঙ্গ খানি
তমিস্রা ভরা ধামে,
ঐ বাঁশ বাগানের কোণে।

ভুলে কি গিয়েছি আমি?
পরকালের বাণী!
পাপীদের জন্য সেথায় করিতেছে প্রতীক্ষা,
জ্বলন্ত তীব্র শিখা,
বিষাক্ত সাপ বিচ্ছুতে ঠাসা,
খাবার হিসেবে রক্ত পুঁজে ভরা,
কত না নানান যন্ত্রণাদায়ক দণ্ড করিতেছে অপেক্ষা।

ভুলে কি গিয়েছি আমি?
মৃত্যুকে!
যে মৃত্যু হবে নিশ্চয়ই কোন এক দিবসে।
তবু,
কেন মোরা মৃত্যুকে ভুলে গিয়ে
লিপ্ত হয়েছি অন্যায় অত্যাচারে?

কেন মোরা মৃত্যুকে ভুলে গিয়ে
লিপ্ত হয়েছি দুর্নীতি আর খুনোখুনিতে?
কেন মোরা মৃত্যুকে ভুলে গিয়ে
লিপ্ত হয়েছি লোভ-লালসা আর অহংকারে?
কেন মোরা মৃত্যুকে ভুলে গিয়ে
লিপ্ত হয়েছি হিংসা-বিবাদে?
কেন মোরা মৃত্যুকে ভুলে গিয়ে
লিপ্ত হয়েছি মাদকদ্রব্য নেশাতে?

কেন মোরা মৃত্যুকে ভুলে গিয়ে
লিপ্ত হয়েছি ক্ষমতার অপব্যবহারে?
ক্ষমতার দাপটে আজ এত বড়াই,
দেখাইতেছো কত না বাহাদুরি,
ক্ষমতার জোরে করেছো
জগতকে জয়।

মৃত্যুর ডাক আসবে যেদিন তোমার দুয়ারে,
মানবে কি পরাজয় সে দিবসে?
ভুলে কি গিয়েছি আমি?
মৃত্যুর কাছে মানুষ বড় অসহায়!
ধরণীর এই ক্ষণিকের মায়ার বাঁধন ছিন্ন করে
যেতে যে হবে বহুদূর।