স্কোর বড় হলেও জেতার জন্য যে পরামর্শ দিলেন সাকিব


Shakib and tamim #paperslife

বড় রান তাড়া করতে গিয়ে অতীতে অনেকবার খেই হারিয়েছে বাংলাদেশ। ভালো অবস্থানে থেকে হঠাৎ উইকেটের পতন। এক উইকেট গেলে, দুই উইকেট-কখনো তিন উইকেট নেই। এভাবে অনেক ম্যাচেই সমূহ সম্ভাবনা জাগিয়ে দিন শেষে ব্যর্থতা উপহার দেওয়া বাংলাদেশ বদলে গেছে অনেকটাই।

তার প্রমাণ গতকালের ম্যাচটি। ৩২২ রানী বিশাল লক্ষ্য! এরপরও ভয় না পেয়ে, ভয়কে জয় করে জিতেছে বাংলাদেশ। কিভাবে তাড়া করেছিলেন এই বিশাল রান? সংবাদ সম্মেলনে সব প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন সাকিব আল হাসান।

সাকিবের মতে ড্রেসিংরুমের পরিবর্তন এমন মানসিকতা পরিবর্তনের জন্য দায়ী। আগে অল্পতে খেলোয়াড়রা প্যানিক করত। এই জায়গা থেকে সরে এসেছে বাংলাদেশ দল। আর তাই সাফল্য ধরা দিচ্ছে বলে মনে করেন এবারের বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। আর এতে কোচিং স্টাফদের কৃতিত্ব দেখুন তিনি।

সাকিব বলেন, ‘কোচিং স্টাফের কৃতিত্ব দেওয়া উচিত। আগে আমরা ঘাবড়ে যেতাম ড্রেসিংরুমে। এখন কোচিং স্টাফরা অনেক শান্ত থাকে, ভড়কে পাওয়ার কোনো সুযোগ থাকে না। যখন শুনি কেউ রেডিওতে ধারাভাষ্য শুনছে, গল্প করছে, কোনো পর্যায়ে মনে হয় না ওরা টেনশন নিচ্ছে। প্যানিক হচ্ছে ছোঁয়াচে, একজন করলে সেটি ছড়িয়ে পড়ে সবার মধ্যে। কোচিং স্টাফ এই বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করছে, বড় রান তাড়া করা এটাও একটা কারণ।’

আয়ারল্যান্ড সিরিজেই সাফল্যকে বড় করে দেখছেন সাকিব। রান চেজ করে জিততে সিরিজটা কাজে লোগেছে বলে মনে করেন তিনি, ‘আয়ারল্যান্ডের ওই কটা ম্যাচ আমাদের অনেক সহায়তা করেছে। ওখানে প্রতিটি ম্যাচই আমরা রান তাড়া করে জিতেছি। কখনো মনে হয়নি, আমরা চাপ নিয়ে ব্যাটিং করেছি। বড় শট খেলতে হবে যখন ঠিকভাবেই খেলেছি।’

ম্যাচ বিরতিতে কি কথা হয়েছিল? কিভাবে পাল্টা আক্রমণ করে হবে? কি বার্তা ছিল খেলোয়াড়দের মাঝে? এসব ব্যাপারেও কথা বলেছেন সাকিব।

সাকিব জানান, ‘প্রথম ইনিংসের পর আমাদের কারও মনে হয়নি লক্ষ্যটা কঠিন। সবাই খুব স্বাভাবিক আর নির্ভার ছিল। এটা আমাদের ড্রেসিংরুমে অনেক আত্মবিশ্বাস দিয়েছে। বিশ্বাস জন্মেছে যে আমরা ওই রান তাড়া করতে পারব। দুই ওপেনার যেভাবে শুরু করেছিল, সবাই ভালো অনুভব করেছি ও আর নির্ভার থেকেছি।’

কঠিন লক্ষ্য ছিল। সেই কাঠিন্যকে সহজে পরিণত করে জিতেছে বাংলাদেশ। সুদূর বাংলাদেশ থেকে ইংল্যান্ডের টনটন। এক টুকরো বাংলাদেশ আরো প্রত্যাশা করে টাইগারদের কাছে। আগামী ম্যাচে ২০ জুন তাই এবার মাঠে নামবে সাকিবরা, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।