হিন্দু-বিরোধী সার্ফ এক্সেল!



মুসলিম বন্ধুকে সাইকেলের পেছনে বসিয়ে নিরাপদে মসজিদে নামাজের জন্য পৌঁছে দিতে এক বাচ্চা মেয়ে তাদের মহল্লায় সব বন্ধুবান্ধবকে তার দিকে রং ছুঁড়তে বলে – যাতে একটা সময় তাদের রংয়ের বেলুন সব ফুরিয়ে যায়।

হিন্দুদের উৎসব হোলির ঠিক আগে জনপ্রিয় ডিটারজেন্ট ব্র্যান্ড সার্ফ এক্সেলের এক বিজ্ঞাপনের গল্পটাই এমন।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে গত শনিবার থেকেই ভারতে দারুণভাবে ট্রেন্ড করতে থাকে (হ্যাশট্যাগ) বয়কটসার্ফএক্সেল। অবশ্য শুধু অনেকেই সার্ফ এক্সেলসহ পণ্যটির নির্মাতা সংস্থা হিন্দুস্থান ইউনিলিভারের যাবতীয় পণ্য বর্জনে আহ্বান জানাচ্ছেন। অনেকে সার্ফ এক্সেল বয়কটের ঘোষণা দিয়েও রিভিউ দিয়েছেন।

এরও দিনকয়েক আগেই তাদের ‘রেড লেবেল’ ব্র্যান্ড চায়ের একটি বিজ্ঞাপনে হিন্দুদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় জমায়েত কুম্ভমেলার একটি গল্প বলা হয়েছিল।

সেই বিজ্ঞাপনে দেখা যায়, কুম্ভে লক্ষ লক্ষ মানুষের ভিড়ে তার বৃদ্ধ বাবাকে ইচ্ছে করে হারিয়ে ফেলার পরিকল্পনা নিয়ে হাজির হয়েছিল এক ছেলে। পরে অবশ্য নিজের ভুল বুঝতে পেরে সেই ছেলে আবার নিজের বাবাকে খুঁজে বের করে, চায়ের কাপে চুমুক দিতে দিতে আবার মিলন হয় বাবা ও ছেলের।

সেই বিজ্ঞাপনের শেষে একটি বার্তাও ছিল, যাতে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ এই ধর্মীয় জমায়েতে কেউ যেন নিজেদের বয়স্ক পরিজনদের ফেলে না চলে যান। এই বার্তাটিকেও অনেকেই ‘হিন্দু-বিরোধী’ বলে রায় দিয়েছেন, বলছেন এটি কুম্ভমেলার চেতনাকে ভুলভাবে উপস্থাপিত করছে।

এই বিজ্ঞাপনে যে গল্প বলা হয়েছে, তার একটি বিকল্প ন্যারেটিভ তুলে ধরতে অনেকে আবার হিন্দু পুরুষদের সঙ্গে হিজাব-পরিহিত মুসলিম মহিলাদের হোলি খেলার ছবি পোস্ট করতে শুরু করে দেন।

এতেই শেষ নয়, সার্ফ এক্সেল-সহ তাদের নির্মাতা সংস্থা হিন্দুস্থান ইউনিলিভারের যাবতীয় প্রোডাক্ট বর্জন করারও ডাক দেওয়া হতে থাকে।