অ্যাশেজ থেকে শুরু হচ্ছে ‘ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ’



টেস্ট ক্রিকেটকে বলা হয় মর্যাদার লড়াই। টেস্ট ক্রিকেটের মাধ্যমে একজন ক্রিকেটারের ধৈর্য, সহিষ্ণুতা, ট্যাকনিক, টেম্পারমেন্ট ফুটে উঠে। সেই সাদা পোশাকের মর্যাদাপূর্ণ লড়াই হারিয়ে ফেলছে জনপ্রিয়তা।

সেই জনপ্রিয়তা ফিরিয়ে আনতে কাজ করছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা (আইসিসি)। আন্তর্জাতিক টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের মাধ্যমে প্রথম কাজ সম্পাদনের চেষ্টায় ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

আগস্টের ১ তারিখ থেকে শুরু হওয়া ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া অ্যাশেজ সিরিজের মাধ্যমে শুরু হচ্ছে ‘ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ’। যেখানে প্রতিটি দল ছয়টি দলের বিপক্ষে সিরিজে লড়াই করবে। যার তিনটি ঘরের মাটিতে, তিনটি প্রতিপক্ষের মাটিতে।

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে লড়বে মোট নয়টি দল। বাংলাদেশ, ভারত, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও শ্রীলঙ্কা।

বাংলাদেশের প্রতিযোগিতা শুরু হবে নভেম্বরে ভারতের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামার মধ্য দিয়ে। এছাড়াও বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা, নিউজিল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। ছয় প্রতিপক্ষের বিপক্ষে বাংলাদেশের মোট ম্যাচ ১৪টি।

প্রতিযোগিতায় সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলবে ইংল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়া, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মোট ২২টি টেস্ট খেলবে তারা।

১৯টি টেস্ট তালিকায় অস্ট্রেলিয়ার প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড, বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা। ভারত খেলবে ১৮টি টেস্ট। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

১৫ টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রতিপক্ষ ভারত, বাংলাদেশ, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশ, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ড মোট টেস্ট খেলবে ১৪টি।

প্রতিযোগিতায় শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের মোট টেস্ট ১৩টি। শ্রীলঙ্কার প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড, বাংলাদেশ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকা, পাকিস্তান এবং পাকিস্তানের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা।

সব দল সমান ম্যাচ খেলার সুযোগ না পেলেও পার্থক্য আসবেনা পয়েন্ট টেবিলে। প্রতিটি সিরিজের জন্য ১২০ পয়েন্ট বরাদ্ধ। পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজের জন্য প্রতিটি ম্যাচে পয়েন্ট থাকবে ২৪ করে।

তিন ম্যাচের সিরিজে সেই পয়েন্ট ভাগ হয়ে ম‍্যাচপ্রতি হবে ৪০ এবং দুই ম্যাচের সিরিজে ম্যাচপ্রতি ৬০ পয়েন্ট।

এভাবে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দুই দল খেলবে ফাইনাল। উল্লেখ্য, প্রায় তিন বছর ধরে চলতে থাকা এই টুর্নামেন্টের ফাইনাল হবে ২০২২ সালে। এছাড়া অ্যাশেজ সিরিজ থেকে খেলোয়াড়দের সাদা পোশাকের জার্সিতে নাম-নম্বর থাকবে বলে নিশ্চিত করেছে আইসিসি।