আফিফ পারলেও অন্যরা কেন পারেন না?


আফিফ পারলেও অন্যরা কেন পারেন না?


দোরগোড়ায় কড়া নাড়ছে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। সেই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ট্রেনিং ক্যাম্প করছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। লক্ষ্য বিশ্বকাপে ভালো করা। সেই লক্ষ্যে কতটা এগিয়েছে বাংলাদেশ? সফল হওয়ার পথে কতটা পথ পাড়ি দিতে হবে? প্রশ্নটা কিন্তু থেকেই যায়।

ট্রেনিং ক্যাম্প চলাকালে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিরুদ্ধে দুটি টি টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ। যার একটিতে এখন মুখোমুখি দুই দল। দুর্বল প্রতিপক্ষ পেয়েও যেন পুরনো রোগ পেয়ে বসেছে লাল সবুজের দলকে। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণের লড়াইয়ে যে রোগ নির্মূল হওয়া বোধহয় আর সম্ভব নয়।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে ব্যাট হাতে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নেমেছিলেন মেহেদি হাসান মিরাজ ও সাব্বির রহমান। কেউই ভালো করতে পারেননি। তিন বলে শূন্য রানে সাব্বির আউট। আর মিরাজ আউট হন ১৪ বলে ১২ করে।

বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের ক্রিকেট ব্যাট হাতে ভরসা হয়ে থাকা লিটন দাশও আউট ৮ বলে ১৩ রান করে। ইয়াসির আলী রাব্বি ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও আউট যথাক্রমে ৪ ও ৩ রানে।

এক পর্যায়ে ৪৭ রানে ৪ এবং ৭৭ রানে ৫ উইকেট হারানো বাংলাদেশ যখন আরব আমিরাতের মতো পুঁচকে দলের চোখ রাঙানি সহ্য করছিল, তখনই আরও একবার ত্রাতা হিসেবে আবির্ভাব আফিফ হোসেন ধ্রুব’র। যাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছেন অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান।

আফিফের ৭ চার ও ৩ ছয়ে ৫৫ বলে ৭৭ এবং সোহানের ২ চার ও ২ ছয়ে ২৫ বলে ৩৫ রানের সুবাদে ২০ অভার বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ১৫৮।

অতীতেও নানান বিপদে দায়িত্ব নিয়ে ত্রাতা হিসেবে নিজেকে চিনিয়েছেন আফিফ। বারবার দলকে খাদের কিনারা থেকে তুলেছেন। হারতে থাকা খেলা জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন। মিরপুরে মিচেল স্টার্ককে মারা কভার ড্রাইভ এখনও চোখের সামনে ভাসে। যেখানে অন্য ব্যাটাররা খাবি খায়, রান করতে ঘাম ছুটে; সেখানেই দাঁড়িয়ে যান একজন আফিফ হোসেন ধ্রুব। দেখিয়ে দেন, চাইলেই পারা যায়। শুধু প্রয়োজন ইচ্ছা শক্তি আর দৃঢ় মনোবল।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, আফিফ পারলে অন্যরা কেন পারেন না? কেনই বা ত্রাতা হয়ে ওঠার ইচ্ছাশক্তি অন্যদের মাঝে দেখা যায় না? কেউ টিকটকের সাবস্ক্রাইবার চায়, কেউবা ইউটিউবের। খেলার বাইরে সব চলে, কিন্তু খেলাটা? সেই জায়গাটা হারিয়ে যায়, দূর থেকে বহুদূরে। আর আফিফ হোসেনের মতো কেউ একজন চেষ্টা করে। একা টেনে নেওয়ার চেষ্টায় ক্লান্ত হয়ে নিজেও হারিয়ে যায়।