আম্পায়ারদের ভুলের বলিদান নিউজিল্যান্ড?



২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনাল শেষ হয়েছে। তবে শেষ হয়নি আলোচনা। গতকাল রাতের ফাইনাল রেখে গেছে হাজারো গল্পের। জয়-পরাজয়ের বিচারে কোনো দলই হারেনি, জিতেনি কেউই। তবুও নিয়মের বিচারে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড।

তবে কি সঠিক ছিল নিয়মকানুন? এসব নিয়ে ক্রিকেটপাড়ায় চলছে আলোচনা সমালোচনা। ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ডের ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনালে ছিল এ যাবৎকালের সেরা একটি ক্রিকেট ম্যাচ।

ক্রিকেটের তীর্থস্থান লর্ডস সেদিন দেখেছিল ক্রিকেটীয় ক্লাইমেক্স। যা সব কিছুকেই হার মানায়। নির্ধারিত ৫০ ওভারের খেলা হয়েছে টাই, তাই হয়েছে সুপার ওভারও। বাউন্ডারির বিচারে প্রথমবারের শিরোপা জিতে নিয়েছে ইংল্যান্ড।

তবে আম্পায়ারদের ভুলের মাশুল দিতে হয়েছে নিউজিল্যান্ডকে, এমন এক নিয়মকানুনের কথা জানা গিয়েছে। যা ভুল ছিল, এবং আম্পায়ারদের এ ভুলেই ছিটকে গেছে নিউজিল্যান্ড।

ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসের বয়স তখন ৪৯.৩ ওভার। জিততে হলে ইংল্যান্ডকে ৩ বলে ৯ রান করতে হবে। ওভারের চতুর্থ বলে ডিপ মিড উইকেটে পাঠিয়ে দিয়েই বেন স্টোকসের দৌড়। আদিল রাশিদ অপর প্রান্ত থেকে ফিরে এসেছেন। কিন্তু ফিরতে পারেননি স্টোকস।

ফেরার জন্য মরিয়া স্টোকস দিলেন ডাইভ। এরআগেই গাপটিল বল তুলে ছুড়ে দিলেন উইকেটরক্ষকের কাছে। কিন্তু বল উইকেটরক্ষক পর্যন্ত পৌঁছানোর আগেই বল ডাইভ দেওয়া বেন স্টোকসের ব্যাট ছুঁয়েছে। আর তাতেই চার রান। দৌড়ে দুই ও চার – মোট ছয়রান জমা পড়ে ইংল্যান্ডের খাতায়।

এখানেই বিপত্তি। আইসিসির নিয়মে বলা আছে, কখনো ওভারথ্রো হলে সেখানে ফিল্ডার কর্তৃক বল ছোঁড়ার আগে রানের মধ্যে থাকা দুই ব্যাটসম্যানকে একে অপরকে অতিক্রম করতে হবে। না হলে সেই রান স্কোরবোর্ডে যোগ হবে না।

কিন্তু গতকালের ফাইনালে স্পষ্টভাবেই দেখা গিয়েছে, গাপটিলের বল ছুঁড়ে দেওয়ার সময় দুই ব্যাটসম্যান একে অপরকে অতিক্রম করেনি। সেক্ষেত্রে সেই রান যোগ হওয়ার কথা না। সেখানে ইংল্যান্ডকে দেওয়া ছয়রানের পরিবর্তে পাঁচরান দেওয়া উচিত ছিল।

এমনই এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফো। প্রতিবেদনে বলা হয়, আম্পায়াররা অনেকবার নিজেদের মধ্যে আলাপ-আলোচনা করে ইংল্যান্ডের পক্ষে ছয়রান দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন, অথচ আইসিসির নিয়ম অনুসারে সেখানে পাঁচরান হওয়া উচিৎ ছিল।

গতকালের ফাইনালে অনেক ভুল সিদ্ধান্ত দিয়েছিলেন কর্তব্যরত আম্পায়াররা। টেইলরের ভুল আউট তাদের মধ্যে অন্যতম। এছাড়াও হেনরি নিকোলাস বেঁচেছিলেন রিভিউ নিয়ে, অন্যদিকে রিভিউ এর সফলতায় উইলিয়ামসনকে আউট করে ইংল্যান্ড।

আইসিসির মতো বড় আসরে এবারের আম্পায়ারিং শুরু থেকেই প্রশ্নবিদ্ধ। এখানে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছে ফাইনালে এমন ভুল সিদ্ধান্ত।