ইনিংস ঘোষণা করে পরাজয়ের শঙ্কা



জাতীয় লীগে মাত্র ১১৪ রানে ইনিংস ঘোষণা করে দক্ষিণাঞ্চল। আর এতেই বিপদে পড়তে যাচ্ছে আব্দুল রাজ্জাকের দলটি।

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে শনিবার দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনের্মারঝামাঝি ইনিংস ঘোষণা করে পরাজয়ের শঙ্কায় পড়েছে দক্ষিণাঞ্চল। ছয় উইকেট হাতে থাকলেও ১২১ রানে পিছিয়ে থেকে  ইনিংস ঘোষণা করা বিস্ময়ের জন্ম দিয়েছে।

তবে দক্ষিণাঞ্চলের ম্যানেজার নাফিস ইকবাল জানান, দলকে ফাইনালে তুলতে এ কৌশল নিয়েছেন তারা।

শুক্রবার ম্যাচের প্রথম দিন ২৩৫ রানে অলআউট হয় মধ্যাঞ্চল। জবাবে দিন শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ২৯ রান করেছিল আব্দুর রাজ্জাকের দক্ষিণাঞ্চল।

ম্যাচের দ্বিতীয় দিন মধ্যাঞ্চলের সংগ্রহকে ছাড়িয়ে যাবে ভাবা হলেও একটি চালাকি করে দক্ষিণাঞ্চল। যা নিজেদেরই বিপদে ফেলেছে।

দক্ষিণাঞ্চল যখন ইনিংস ঘোষণা করে তখনও দিনের খেলা বাকি ছিল ৭১ ওভার। ১২১ রানের লিড থাকা মধ্যাঞ্চলের সামনে সুযোগ আসে দক্ষিণাঞ্চলকে বড় লক্ষ্যের নিচে চাপা দেয়ার। সে সুযোগটা কাজে লাগিয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

নাজমুল হোসেন শান্তর অপরাজিত ১২২ রানে ছয় উইকেটে মধ্যাঞ্চলের সংগ্রহ ২০৯ রান। প্রথম ইনিংসে ১২১ রান লিড পাওয়ার সুবাদে তারা এখন ৩৩০ রানে এগিয়ে।

এখনও খেলার দুইদিন বাকি। এই লিড আরো বাড়লে জয়ের থেকে দুরেই যেতে থাকবে দক্ষিণাঞ্চল।

মধ্যাঞ্চল যদি ম্যাচটিতে জিতে যায় তাহলে অতি চালাকির ফলটা হাতেনাতেই পেয়ে যাবে দক্ষিণাঞ্চল। কেননা বিসিএলের বাইলজ অনুযায়ী, কোনো দল টানা দুই ম্যাচ জিতলে বোনাস পাবে পুরো ১ পয়েন্ট। যার ফলে মধ্যাঞ্চলের ০.৫ বোনাস আটকাতে গিয়ে পুরো ১ পয়েন্ট দিয়ে দেবে দক্ষিণাঞ্চল।

উল্লেখ্য, বিসিএলের বাইলজ মোতাবেক, প্রথম ১০০ ওভারে পাঁচ উইকেট নেয়ার জন্য প্রতিটি দল পাবে ০.৫ পয়েন্ট। সাত উইকেট নিলে পাওয়া যাবে এক পয়েন্ট। নয় বা তার বেশি উইকেটের জন্য ১.৫ পয়েন্ট। বোলিংয়ে সর্বোচ্চ পাওয়া যাবে দেড় পয়েন্ট।