একজন স্টিভ রোডস কতটা বাংলাদেশের?



এলেন, দেখলেন, মনটা জয় করে নিয়ে চলে গেলেন – স্টিভ রোডসের ক্ষেত্রে এমন কথাটাই যেন খুব ভালো মিলে। অন্তত বিগত কয়েক ঘন্টায়, তার বিদায়ের ঘোষণার পর তাই মনে হচ্ছে।

সদ্য সাবেক হয়ে গিয়েছেন বাংলাদেশের কোচ স্টিভ রোডস। বিসিবি যে চুক্তি বাতিল করেছেন। আর থাকছেন না দায়িত্বে। আর তাই তল্পিতল্পা গুটিয়ে যেতে হচ্ছে ইংল্যান্ডের পথে, নিজেই বাড়িতে। এখানে যে থাকা বড্ড দায়, আর যে চলবে না।

রোডসের এমন চলে যাওয়া মানতে পারছেন না অনেকেই। ক্রিকেটপ্রেমীদের আবেগের সাথে মিশে গিয়েছিলেন এই মানুষটি। সবার ভালবাসা জয় করে নিয়েছেন মাত্র একটি বছরেই।

কোচের সাথে যেখানে সাপে নেউলে সম্পর্ক থেকে ক্রিকেট ভক্তদের, সেখানে এই মানুষটি ব্যতিক্রম। নিজের প্যাশন, ভালবাসা, কর্তব্য-নিষ্ঠা দিয়ে মন জয় করে নিয়েছেন সবাই। সে কারণেই তার বিদায়ে দুঃখিত, ব্যথিত ক্রিকেটকে ভালবাসার সেসব মানুষজন। আর যদি কিছুদিন থাকতেন!

স্টিভ রোডস যখন গত বছরের ঠিক এই সময়ে বাংলাদেশের দায়িত্ব নিয়ে আসেন, এ দেশের ক্রিকেটের চিত্র তখন ভগ্নদশা। কোচ শূন্য দীর্ঘ সময় পার করা সাকিব-তামিম-মাশরাফিরা অবশেষে পেয়েছিলেন একজন অভিভাবক।

এই ভগ্নদশাতে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে রেখে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক কোচ চন্ডিকা হাতুরুসিংহে। যার বিরুদ্ধে ছিল অনেক অভিযোগ।

এই অভিযোগের বাংলাদেশে অবশেষে এসেছিলেন তিনি। আপন করে নিয়েছিলেন সবাইকে। ক্রিকেটের প্রতি তার ভালবাসা মন কেড়ে নিয়েছিল সবার। এই ভালবাসায় সিক্ত হয়েছিলেন তিনিও।

সবাই যখন ছুটি কাটাতে ব্যস্ত, তিনি তখন ঘুরে ঘুরে দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে দেখতেন। মনে মনে হয়ত ছক কষতেন এদেশের ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার।

হাতুরুসিংহের কথাই ধরা যাক। বছরের অর্ধেক সময় তিনি ছুটি কাটাতেন। খেলা না থাকলেই চলে যেতেন নিজের দেশে।

অথচ রোডস থেকে যেতেন বাংলাদেশেই। গরমে বসে বিকেএসপির ছাদে বসে দেখতেন তরুণ ক্রিকেটারদের খেলা। বের করে নিয়ে আসতেন নতুন খেলোয়াড়। তরুণ সাদমান ইসলাম তারই আবিষ্কার।

কখনো সৌম্যের ডবল সেঞ্চুরির পর তাকে বাহবা দিতেন, কখনোবা মাশরাফি-সাকিবদের সাথে লিপ্ত হতেন ছোট্ট খুনসুটিতে।

এমন একজনের বিদায়ে তাই মন খারাপ হওয়াটা স্বাভাবিক। হয়ত দিতে পারতেন অনেক কিছুই, কিন্তু সে সুযোগটিই যে পেলেন না।

তার অধীনে বাংলাদেশ খেলেছে ৮টি টেস্ট, ৩০টি ওয়ানডে ও ৬টি টি-টোয়েন্টি। টেস্টে ৩ জয়ের বিপরীতে হেরেছে ৫টিতে। ওয়ানডেতে জয় ১৭টি, পরাজয় ১৩টি। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরমেট টি-টোয়েন্টিতে জয় পরাজয় সমানে সমান- তিনটি করে।

শেষবেলায় বিদায়। একদিন ছেড়ে যেতে হয়, চলে যেতে হয়। মন না চাইলেও বলতে হয় বিদায়। স্টিভ রোডসকে তাই বিদায় জানাতে হচ্ছে। নতুন কেউ হয়ত আবার দায়িত্ব নেবে, এগিয়ে নিয়ে যাবে এদেশের ক্রিকেটকে। কিন্তু স্টিভ রোডস? তিনি স্টিভ রোডসই থাকবেন।