করোনায় আক্রান্ত নেইমার-দি মারিয়া




চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে প্রথম ফাইনাল। কাছে যেয়েও জিততে পারেনি ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। জার্মান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ১-০ গোলের পর্যায়ের ক্ষত এখনো শুকায়নি। এরই মাঝে আরও একটি দুঃসংবাদ ক্লাবটির জন্য।

ক্লাব ফুটবলের নতুন মৌসুম শুরুর আগে ছুটি কাটাতে গিয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ব্রাজিলের সুপারস্টার নেইমার। সেই সাথে আর্জেন্টাইন সুপারস্টার দি মারিয়া ও তরুণ পারদেসের শরীরেও শনাক্ত হয়েছে প্রাণঘাতী এ ভাইরাস।

দি মারিয়ার জাতীয় দলের সতীর্থ মাউরো ইকার্দির শরীরেও ভাইরাসটির সংক্রমণ হয়েছে বলে গুঞ্জন রয়েছে। তিনিও ইবিজায় ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন।

তবে তার ব্যাপারে এখনও কোনো নিশ্চিত খবর পাওয়া যায়নি।

এর আগে সোমবার পিএসজি এক বিবৃতিতে জানায়, তাদের দু’জন খেলোয়াড় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বুধবার আরও একজনের কথা স্বীকার করা হয়েছে। তবে নাম প্রকাশ করা হয়নি। কিন্তু ফরাসি সংবাদমাধ্যমগুলো তৃতীয় খেলোয়াড়টির নাম নেইমার বলেই জানিয়েছে।

জানা যায়, সপ্তাহে ইবিজায় একসঙ্গে ছুটি কাটাতে গিয়েই কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন নেইমার-দি মারিয়ারা। স্প্যানিশ দ্বীপে তাদের সঙ্গেই ছিলেন পারেদেস। তিনজনই এখন আইসোলেশনে আছেন।

চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালের পর দলের প্রায় সব ফুটবলারই ইবিজায় ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন। সেখানে নেইমার তার ছেলে ও বাবাকে নিয়েছিলেন। এছাড়া গোলরক্ষক কেইলর নাভাস ও আন্দ্রে হেরেরার মতো তারকারাও ছিলেন। তবে বাকিদের কারো করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।