কী এমন হয়েছিলো যে বাসর রাতে স্বামীকে ছুরিকাঘাত



চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার পূর্ব লাউতলী গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের সঙ্গে গতকাল সোমবার পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় একই উপজেলার ফিরোজ আলমের মেয়ে শ্যামলী আক্তারের।

জানা গেছে, বিয়ের অনুষ্ঠানিকতা শেষে আনুমানিক রাত ২টার দিকে বাসরঘর থেকে দেলোয়ার হোসেনের চিৎকার শোনা যায়। পরিবারের লোকজন সেখানে গিয়ে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পান। গুরুতর আহত অবস্থায় বর দেলোয়ারকে কুমিল্লার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে শ্যামলী আক্তার নামে ওই নারী কিংবা তার পরিবারের কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ দায়ের হয়নি। শ্যামলী আক্তারই তার স্বামীকে ছুকিাঘাত করে পালিয়ে গেছে বলে ধারণা দেলোয়ারের পরিবারের। তার বোন রুনা বেগম জানান, ভাইয়ের চিৎকার শুনে ঘরে ঢুকে তারা দেলোয়ারকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পান।