ভারত-নিউজিল্যান্ডের সেমিফাইনালে প্রতিযোগিতা যাদের



এই ম্যাচটি পার করলেই ফাইনাল। যেখানে তারা অপেক্ষায় থাকবে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে জয়ী দলের জন্য। ভারত ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার এ ম্যাচে কেবল দুটি দলের লড়াই হবে না, এখানে দ্বৈরথটা জমে উঠবে দুই দলের তারকা খেলোয়াড়দের মাঝেও।

ব্যক্তিগত এ দ্বৈরথে যারা জিতবেন, সে দলটির ফাইনালে পৌঁছার সম্ভাবনাও অনেক বেড়ে যাবে।

বুমরাহ বনাম বোল্ট: জাসপ্রিত বুমরাহ বর্তমান সময়ের সেরা পেসার। ভারতীয় এ পেসার বিশ্বকাপেও অব্যাহত রেখেছেন নিজের আগুনে বোলিং। ৮ ম্যাচে তার উইকেট সংখ্যা ১৭। বল নতুন হোক কিংবা পুরনো, দুটিতেই বিধ্বংসী বুমরাহ। কেবল উইকেট দেয়ার দিক থেকেই নয়, রান আটকাতেও সমান পারদর্শী এ পেসার। ভারতকে শিরোপা জিততে হলে আরো দুই ম্যাচে অন্তত বুমরাহর জাদুকরী পারফরম্যান্সের অপেক্ষায় থাকবে ভারত।

তবে বুমরাহর গতির জবাব দিতে প্রস্তুত থাকবেন ট্রেন্ট বোল্ট। আগের বিশ্বকাপের মতো এবারো বল হাতে দারুণ ফর্মে এ কিউই পেসার। ৮ ম্যাচে উইকেট নিয়েছেন ১৫টি। দুরন্ত বোল্টই বল হাতে কিউইদের ভরসার কেন্দ্রে থাকবেন। তার পারফরম্যান্স সেমিফাইনালে পার্থক্য গড়ে দিতে পারে।

রোহিত বনাম গাপটিল: বিশ্বকাপের পারফরম্যান্সের দিকে তাকালে রোহিত শর্মা ও মার্টিন গাপটিলের লড়াইটা অসমই মনে হবে। দুজনের অবস্থানও আকাশ ও পাতালে। তার পরও সেমিফাইনালে চোখ থাকবে গাপটিলের ওপর। সেমিতে নিউজিল্যান্ডের ভালো কিছুই করতে হলে জ্বলে উঠতে হবে গাপটিলকে। এখন পর্যন্ত ৮ ম্যাচে গাপটিলের রান ১৬৬। সর্বোচ্চ রান ৭৩। কিন্তু এ পরিসংখ্যান গাপটিলের সামর্থ্যের পরিচয় দিচ্ছে না। সেমিতে তাই নিজের সেরাটা দিয়েই জ্বলে উঠতে চাইবেন এ ওপেনার। আর গাপটিল জ্বলে উঠলে মাথাব্যথা বাড়বে ভারতের।

অন্যদিকে ক্যারিয়ারের সেরা সময় পার করছেন রোহিত। ৮ ম্যাচে ৬৪৭ রানের পরিসংখ্যানই বলে দিচ্ছে কতটা বিধ্বংসী ফর্মে আছেন এ ব্যাটসম্যান। যেখানে সেঞ্চুরি আছে ৫টি এবং অর্ধশতক ১টি। তার কাছ থেকে এ পারফরম্যান্স আরো অন্তত দুই ম্যাচে পেতে চাইবে ভারত। আর সেমিতে রোহিতের সেরা ছন্দ দেখা দিলে হতাশায় পুড়তে হবে কিউইদের।

কোহলি বনাম উইলিয়ামসন: দুর্দান্ত ফর্মে আছেন বিরাট কোহলি। সেঞ্চুরি না পেলেও এখন পর্যন্ত পাঁচটি অর্ধশত রানের ইনিংস খেলেছেন তিনি। বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের অন্যতম ভরসাও অধিনায়ক কোহলি।

অবশ্য কোহলির আক্ষেপও আছে বিশ্বকাপ নিয়ে। সতীর্থ রোহিত শর্মা যেখানে এখন পর্যন্ত পাঁচটি শতরানের ইনিংস খেলেছেন, সেখানে কোহলি নিজের পাঁচ অর্ধশতকের একটিকেও সেঞ্চুরিতে রূপ দিতে পারেননি। এখন পর্যন্ত ৮ ম্যাচে ৬৩ দশমিক ১৪ গড়ে ৪৪২ রান করেছেন তিনি। সর্বোচ্চ রান ৮২। সেমিফাইনাল ও ফাইনালে অধরা সেই শতক তুলে নেয়ার অপেক্ষায় থাকবেন কোহলি। আর কোহলির সেঞ্চুরি মানে ভারতের জয়ের সম্ভাবনা বেড়ে যাবে অনেকটাই।

তবে সেমিতে কোহলিকে কঠিন চ্যালেঞ্জ জানাতে প্রস্তুত থাকবেন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। যিনি কিনা বিশ্বকাপে দারুণ সময় পার করছেন। অবশ্য শুরুতে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা উইলিয়ামসন পরে খেই হারিয়ে ফেলেছেন। তার পরও রান সংগ্রাহকের তালিকায় ৬ নম্বরে আছেন তিনি। ৮ ম্যাচে দুই সেঞ্চুরি ও এক অর্ধশতকে তার রান ৪৮১। গড় ৯৬ দশমিক ২০।

কিউইদের টানা দ্বিতীয়বার ফাইনালে উঠতে হলে আবারো জ্বলে উঠতে হবে উইলিয়ামসনকে। তার ব্যাটের ওপর নির্ভর করছে নিউজিল্যান্ডের সাফল্য-ব্যর্থতার অনেকটাই।