৪৯টি সন্তানের জনক এক ফার্টিলিটি চিকিৎসক!



নেদারল্যান্ডসের ফার্টিলিটির এক চিকিৎসক ডাঃ ইয়ান কারবাতের ক্লিনিক ছিল রটারড্যাম এলাকায়। পেশাগত ভাবেই ওই চিকিৎসকের কাজ ছিল সন্তান জন্মদানে যাদের সমস্যা আছে এই রকম মানুষদের সহযোগিতা করা। তবে রোগীদের না জানিয়ে নিজেই ৪৯ সন্তানের জনক হয়েছেন বলে জানা গেছে।

ফার্টিলিটি ক্লিনিকের একটি কাজ হল কোন পুরুষের কাছ থেকে তার দান করা শুক্রাণু সংগ্রহ করা। আবার অনেক ক্ষেত্রে শুক্রাণু দানকারীর পরিচয় গোপন রাখা হয়। অনেক সময় চিকিৎসা নিতে আসা ব্যক্তিরা শুক্রাণু দানকারীকে নিজেরা পছন্দ করে নিয়ে আসেন।

তবে, ডাঃ ইয়ান কারবাতে  নিজেই নিজের শুক্রাণু ব্যবহার করতেন বলে এখন জানা যাচ্ছে। সেটাও আবার চিকিৎসা সহায়তা নিতে আসা লোকজনের কোন অনুমতি না নিয়েই।

এমনই এক তথ্য ডিএনএ রিপোর্টের মাধ্যমে উঠেছে যে তার কাছে চিকিৎসা নিতে আসা সেই সব মানুষের অনুমতি না নিয়েই নিজেই ৪৯ জন সন্তানের জন্মদিয়েছেন।

২০১৭ সালে এই চিকিৎসকের ক্লিনিকে সহায়তার মাধ্যমে জন্ম নেয়া একটি শিশুর চেহারা দেখতে মারাত্মকভাবে মিলে যাচ্ছিলো ডাঃ কারবাতের সাথে।

এ ব্যাপারে,  সালে তার সহায়তায় জন্মানো ৪৯ ব্যক্তি ও তাদের বাবা ও মায়েরা একই সন্দেহ থেকে আদালতে মামলা করেন। যাদের বেশিরভাগেরই জন্ম ৮০ দশকে। তাদের সন্দেহ হচ্ছিলো এই চিকিৎসকের সাথে তাদের কোন সম্পর্ক রয়েছে।

যদিও ডাঃ কারাবাত দুই বছর আগে মারা গেছেন।

এমন প্রতিক্রিয়ায় তার সন্তানেরা কেউ কেউ বলছেন যে, এগারো বছর ধরে নিজের বাবাকে খুঁজেছেন তার ক্লিনিকে চিকিৎসার মাধ্যমে জন্ম নেয়া একজন। অবশেষে তিনি জেনেছেন তার বাবা হচ্ছেন তার মায়ের চিকিৎসক।

ডাঃ কারবাত এসিস্টেড রিপ্রোডাকশন’ বিষয়ক গবেষক হিসেবে নিজেকে দাবি করতেন। এমনবস্থায় ২০০৯ সালেই তার ক্লিনিকটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছিলো। তবে ধারণা করা হচ্ছে তার সন্তানের সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে।