সম্পর্ককে দৃঢ় করবেন যেভাবে



প্রতিদিন প্রশংসা করুন:
লন্ডনের বিখ্যাত চিকিৎসক সারা ক্যালভার্ট বলেছেন, নিজের সঙ্গীর প্রশংসা করা সবসময় উপকারী। এটি নিজেদের মধ্যে কঠিন বিষয়গুলো কথোপকথনের সমাধানে সহায়তা করে।
সঙ্গীর যে বিষয়ে ঘাটতি আছে তাকে সেই ব্যাপারে ইতিবাচক কথা বলুন। ক্যালভার্ট বলেন যখন আপনার সঙ্গী তার সম্পর্কে আপনার প্রশংসা করার বিষয়টি আরও ভাল করে বোঝে, তখন তারা সেসব বিষয়গুলোকে ইতিবাচক হিসেবে দেখে।

সঙ্গী পরিবর্তন করার চেষ্টা করবেন না:
আপনি যাকে নিজের জন্য বেঁছে নিয়েছেন তাকে ছাড়া অন্য কাউকে পরিবর্তন করতে যাবেন না।
এই বিষয়ে ডি হোমস বলেছেন আমরা সকলেই এমন কিছু কাজ করি যা নিজের অজান্তেই আমাদের সঙ্গীদের জ্বালাতনের কারণ হয়ে দাড়ায়। তাই একে অপরের ব্যক্তিত্বকে সম্মান করুন এবং উদযাপন করুন।

সন্দেহ করা থেকে বিরত থাকুন:
কোন বিষয়ে সম্বন্ধে সুস্পষ্ট ধারণা না নিয়ে সঙ্গীকে অযথা সন্দেহ করতে যাবেন না।
এ বিষয়ে হোমস বলেছেন আপনার সঙ্গী যদি আপনার সাথে বাইরে যেতে না চান তবে তার হৃদয় পরিবর্তনের কারণ কী তা বিবেচনা করুন। সেইসাথে তার মনে অন্য কিছু চলছে কি না তা ভালবাসার মাধ্যমে জেনে নেয়ার চেষ্টা করুন।

সবসময় যোগাযোগ রাখুন:
এটি আপনার নিজের অনুভূতির সংস্পর্শে যাওয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হয়। কালভার্ট বলেছেন।
“অন্যথায়, আপনার কী প্রয়োজন এবং আপনি কী বলতে চান তা বলতে পারবেন না। ভাল যোগাযোগ সংবেদনশীল ঘনিষ্ঠতা বৃদ্ধি করে, যা পরিপূর্ণতা, বোঝার, আস্থা এবং সুরক্ষার বৃহত্তর অনুভূতির দিকে নিয়ে যেতে পারে।

আপনার সঙ্গী কী পছন্দ করে তা আবিষ্কার করুন:

কিছু লোক তাদের সঙ্গীর ক্রিয়াকলাপের মাধ্যমে ভালোবাসা বোধ করেন। কালভার্ট বলেন, কারও কারও কাছে প্রশংসার শব্দ রয়েছে,
তাদের বলা উচিত যে তারা ভালবাসে। অন্যদের জন্য শারীরিক যোগাযোগ আরও তাৎপর্যপূর্ণ।
নিজের সঙ্গীকে সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে যথাযথ সময় উপহার দিন।

এই সব বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিয়ে নিজেদের সম্পর্ককে গড়ে তুলুন এক অনন্য উচ্চতায়।