জনগণের অর্থে বিলাসিতা, পদত্যাগ করলেন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী




জনগণের অর্থে বিলাসিতা করার দায়ে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী টম প্রাইস পদত্যাগ করেছেন। সরকারি কাজে ব্যয়বহুল ব্যক্তিগত ফ্লাইট ব্যবহার করার কেলেঙ্কারিতে ফেঁসে তিনি পদত্যাগ করেন।
হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে জানানো হয়, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রাইসের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন। ডন জে রাইটকে ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্যমন্ত্রী নিয়োগ করা হয়েছে।
টম প্রাইসের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, গত মে মাস থেকে তিনি ২৪টি ব্যক্তিগত ফ্লাইটে ভ্রমণ করেন। এতে দুই লাখ ২৩ হাজার মার্কিন ডলার ব্যয় হয়। যা অতি ব্যয়বহুল। অভিযোগে বলা হয়, করদাতারা এসব ফ্লাইটের খরচা বহন করেন। অভিযোগ ওঠার পর প্রাইস দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমা চেয়েছেন। সমালোচনা ওঠার পর প্রাইস বৃহস্পতিবার বলেছিলেন, বিমান ভাড়া করে যাওয়ার জন্য সরকারের যে ৫২ হাজার ডলার খরচ হয়েছে, তা তিনি মিটিয়ে দেবেন।
তবে ট্রাম্প তার অসন্তোষের কথা সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, ‘আমি খুশি হতে পারিনি। বুঝলেন, একদমই খুশি হতে পারিনি।’
এর পরপরই শুক্রবার প্রাইসের পদত্যাগের ঘোষণা আসে। হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে বলা হয়, স্বাস্থ্য ও জনসেবা মন্ত্রী টমাস প্রাইস পদত্যাগের ইচ্ছা জানালে প্রেসিডেন্ট তা অনুমোদন করেন। কংগ্রেসের সাবেক সদস্য প্রাইস সাবেক প্রেসিডেন্ট ওবামার স্বাস্থ্যনীতি (যা ওবামাকেয়ার নামে পরিচিত) বদলে দেওয়ার মূল রূপকার।
যুক্তরাষ্ট্র্রে পেশাগত কাজে সরকারি কর্মকর্তাদের বাণিজ্যিক ফ্লাইটে ভ্রমণের নিয়ম রয়েছে। কেবল জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তারা এ নিয়মের বাইরে। ট্রাম্পের মন্ত্রিসভার আরও তিন সদস্য এখন কড়া নজরদারিতে রয়েছেন। সরকারি কাজে তাঁরা এ ধরনের ব্যক্তিগত ফ্লাইট ব্যবহার করেছেন কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।