ঢাকা ফিরছে তার চিরচেনা রূপে




ধীরে ধীরে তার চিরচেনা যান্ত্রিক রূপে ফিরতে শুরু করেছে রাজধানী ঢাকা। ঈদুল আযহার তিন দিনের সাধারণ ছুটি শেষে কর্মস্থলে যোগ দিতে ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছেন মানুষ। কয়েকদিনের মধ্যেই আবারো ব্যস্ত হয়ে উঠবে এ শহরটি।
তবে মহাসড়কে যানজট না থাকায় অনেকটা শান্তিতেই ফিরতে পারছেন তারা।
অনেকে ভিড় এড়াতে আবার অনেকে সরকারি ছুটি শেষ হওয়ায় ঢাকা ফিরছেন আজ। কমলাপুর রেলস্টেশনে ঢাকামূখী মানুষের ভিড় ছিলো লক্ষ্যনীয়। ঈদযাত্রায় গ্রামে যাওয়ার সময় কিছুটা বিপর্যয় হলেও, ফেরার পথে স্বস্তি নিয়েই ফিরেছেন রেলপথের যাত্রীরা।
আজ সোমবার রাজধানীর গাবতলী আন্তজেলা বাস টার্মিনালে দূর-দূরান্ত থেকে ঢাকায় ফেরা মানুষের ভিড় দেখা যায়। পরিবহন সংশ্লিষ্টরা জানান, দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ছেড়ে আসা দূরপাল্লার বাসগুলো নির্দিষ্ট সময়ে গাবতলীতে যাত্রী নামাচ্ছে। কোনো ভোগান্তি ছাড়া ঢাকায় ফিরতে পেরে যাত্রীদের চোখে-মুখে ছিল স্বস্তির ছাপ।
রংপুর থেকে ফেরা এক যাত্রী বলেন, ‘রংপুর থেকে ঢাকায় আসলাম। ছুটি কম থাকায় তাড়াতাড়ি ফিরলাম। পরিবারের লোকজন আরও দেরিতে ফিরবে। রাস্তায় যানজট না থাকায় নির্দিষ্ট সময়ে চলে এলাম। ওদিক থেকে রংপুর টার্মিনাল থেকে ঠিক সময়ে গাড়ি ছেড়েছে কোনো ঝামেলা হয়নি।’
যাত্রাপথে ভোগান্তি নেই। আগামী ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ঢাকায় ফেরা যাত্রীর চাপ থাকবে।
ঢাকা-যশোরগামী অপর এক পরিবহনের কর্মকর্তা বলেন, ‘দক্ষিণবঙ্গ ছেড়ে আসা গাড়িগুলোর কোনো দেরি নেই। ঢাকায় ফেরা যাত্রীর চাপ বাড়বে ছয় তারিখের পর। ছুটি শেষে কর্মমুখী মানুষদের বেশি ঢাকায় ফিরতে দেখা গেছে। অনেকের পরিবার এখনো গ্রামে।’
এদিকে সোমবার সকাল থেকেই রাজধানীর সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল, রেলওয়ে স্টেশন ও বাস টার্মিনালে মানুষের ঢল নামে।
ঈদের ছুটি কাটিয়ে লঞ্চে করে সকালে সদরঘাটে এসে নামেন দেশের দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ। তবে, কোনো নৌযানেই অতিরিক্ত যাত্রীচাপ ছিলো না। অন্য বারের চেয়ে এ বছর নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় নিরাপদে কর্মস্থলে ফিরতে পেরে খুশি নগরবাসী।