নির্বিচারে হত্যা করা হচ্ছে রোহিঙ্গাদের




মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলমান হত্যার ঘটনাকে ‘গণহত্যা’ বলে আখ্যা দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান।
শুক্রবার ইস্তাম্বুলে এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতায়, ক্ষতিগ্রস্ত রোহিঙ্গা মুসলমানদের সহায়তায় বিশ্ব সম্প্রদায়ের উদ্যোগ নেয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি।
রিসেপ তাইপ এরদোয়ান বলেন, সারা বিশ্বে মুসলমানদের ওপর অত্যাচার আর নির্যাতনের বিষয়ে বিশ্ব সম্প্রদায়ের চুপ থাকা টা অনেক দুঃখজনক। মিয়ানমারের রাখাইনে মানবতা বিরোধী অপরাধ চলছে। তারা নির্বিচারে রোহিঙ্গা মুসলমানদের হত্যা করছে। গণতন্ত্রের আড়ালে এমন নৃশংসতা মেনে নেয়া যায় না।
রাখাইনে নিরাপত্তা বাহিনীর রোহিঙ্গা বিরোধী অভিযানে শুধু মুসলমানরাই না, ওই অঞ্চলের হিন্দু ও বৌদ্ধদের মধ্যেও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। সম্প্রতি পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্যটিতে সংঘাত ছড়িয়ে পড়ার পর এখন সেখানে শুধুই ধ্বংসযজ্ঞের চিহ্ন। রোহিঙ্গারা সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে তাদের স্বজনদের হত্যা ও ঘর-বাড়ি পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ করলেও, স্থানীয় কর্তৃপক্ষ সশস্ত্র মুসলিম বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে, অন্য ধর্মাবলম্বীদের ওপর হামলা চালানোর পাল্টা অভিযোগ তোলে।
গত ২৫শে আগস্ট রাখাইনে পুলিশ পোস্টে বিদ্রোহীদের হামলার পর সন্ত্রাস বিরোধী অভিযানের নামে, রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায় নতুন করে দমন-পীড়ন শুরু করে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী। সেথেকে এখন পর্যন্ত অন্তত ৪০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। এছাড়া বিভিন্ন সহিংসতায় ৪ শতাধিক রোহিঙ্গা নিহত হয় বলেও জানানো হয়।
শুক্রবার এক বিবৃতিতে সংস্থার মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস দ্রুত ওই অঞ্চলে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। সেখানে বহু রোহিঙ্গার মৃত্যুর খবরে উদ্বেগ জানিয়ে, শিগগিরই চলমান সমস্যার সমাধান না হলে ওই অঞ্চলে মানবিক বিপর্যয় দেখা দেয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।