সেই ঢাকা, এই ঢাকা




দুই কোটিরও বেশী মানুষের আবাসস্থল রাজধানী ঢাকার চিত্র গত কয়েকদিনে পুরোটাই পাল্টে গেছে। নেই মানুষের কোলাহল আর দীর্ঘ যানজট। কয়েকদিন আগের ঢাকার সাথে মেলাতে গেলে অবাক হতে হবে যে কাউকে।
ঈদের ছুটিতে ঢাকা নগরীতে বসবাসকারী জনসংখ্যার বিপুল সংখ্যক মানুষ গ্রামে চলে গিয়েছে। এ কারণে ঢাকা শহর কার্যত ফাঁকা হয়ে পড়েছে। সামান্য কয়েকটি গণপরিবহন চলাচল করতে দেখা যাচ্ছে ফাঁকা রাস্তায়। ঢাকা হারিয়েছে তার চিরচেনা রূপ। ব্যস্ততাহীন ঢাকায় সহজে চলাফেরা করতে পেরে স্বস্তিতে রয়েছেন নগরবাসী।
যারা নিয়মিত বিভিন্ন রাস্তা অতিক্রম করেন তাদের অনেকেই ফাঁকা ঢাকার পরিস্থিতি দেখে অবাক হয়ে পড়ছেন। তবে মতিঝিল-পল্টনের মত ব্যস্ত রাস্তায় যারা প্রতিনিয়ত যাতায়াত করেন তারা ঢাকার এ জ্যামহীন অবস্থা উপভোগ করছেন।
বিভিন্ন রাস্তায় যানবাহনের চাপ না থাকায় ফাঁকা রাস্তায় অলস সময় পার করতে দেখা যায় ট্রাফিক পুলিশকে। আবার রাস্তা ফাঁকা পেয়ে ট্রাফিক সিগন্যাল না মেনে বেপরোয়া গাড়ি চালান কেউ কেউ। এতে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন অনেকে।
বিপুল সংখ্যক মানুষ ঢাকা ত্যাগের কারণে রাজধানীর রাস্তাঘাট যেন ফাঁকা খেলার মাঠ। রাজধানীর ব্যস্ততম পল্টন মোড়, গুলিস্তান, মতিঝিল, কাকরাইল এমনকি মৌচাকেও চিরচেনা যানজট নেই। ফুটপাথে ও কিছু বিপণিবিতানে এখনো ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। যারা ঢাকায় ঈদ করছেন মূলত তারাই এখনও কেনাকাটায় ব্যস্ত। এছাড়া অনেকে ঈদের আগে কেনাকাটার সময় পাননি, তারাও এখন সময় পেয়ে কেনাকাটা করছেন।
তবে সারা বছর ঢাকার ফুটপাতগুলো হকার ও ক্রেতাদের ভীড়ে পথচারী চলাচলের অনুপযোগী থাকলেও ঈদকে ঘিরে তা এখন পুরোটাই ভিন্ন চিত্র। ঢাকার এই যানজটহীন চিত্র সারাবছরই বিরাজমান থাকুক এমনটাই প্রত্যাশা নগরবাসীর।