সৌদিতে স্ত্রীদের গাড়ি চালানো শেখাচ্ছেন স্বামীরা




নারীদের গাড়ি চালানোর ওপর বাধানিষেধ দূর করে সৌদি আরবে গত সপ্তাহে বাদশাহ সালমানের আদেশ জারির পর স্বামীরা এখন তাঁদের স্ত্রীদের গাড়ি চালানো শেখাচ্ছেন।

ফয়সাল নামের একজন টুইটারে ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘আমি আমার স্ত্রীকে গাড়ি চালানো শেখাচ্ছি।’ ছবিতে চালকের আসনে তাঁর স্ত্রীকে দেখা যায়।

এদিকে এএফপির খবরে বলা হয়, সৌদি আরবের এক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নারীদের জন্য গাড়ি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা চালু করার কথা জানিয়েছে। গত শনিবার প্রিন্সেস নুরাহ ইউনিভার্সিটি এ কথা জানায়।

সৌদি আরবে আগে নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি ছিল না। গত মঙ্গলবার নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি-সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়।

উল্লেখ্য, বিশ্বে সৌদি আরবই একমাত্র দেশ ছিল যেখানে নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি ছিল না। সৌদি আরবের বিদ্যমান ব্যবস্থায় পুরুষেরাই কেবল গাড়ি চালানোর লাইসেন্স পেতেন। কোনো নারী যদি জনসম্মুখে গাড়ি চালান, তাহলে তাঁকে গ্রেপ্তার ও জরিমানা করা হত। আইন ভেঙে গাড়ি চালানোয় কিছু নারী কারাভোগও করেছেন। নারীদের গাড়ি চালনায় নিষেধাজ্ঞা ভাঙায় লুজাইন আল-হাতলোল নামের এক সৌদি অধিকারকর্মীকে চলতি বছর ৭৩ দিন আটক থাকতে হয়। সৌদি আরবে ‘উইমেন টু ড্রাইভ’ আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক মানাল আল শরীফকেও আইন ভাঙায় জেলে যেতে হয়েছিল। নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি দিতে কয়েক বছর ধরে দেশটির মানবাধিকার সংগঠনগুলো প্রচার চালিয়ে আসছে।